fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদার কালিয়াচকে বিনামূল্যের বাজার, ৫ হাজার দুঃস্থকে ৪০ ধরণের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

মিল্টন পাল, মালদা: করোনা সংক্রমণের জেরে রুজি-রোজগারহীন অনেকেই। ফলে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে কম বেশি সকলেই। তাই এই জরুরি অবস্থায় বিনামূল্যের বাজারের আয়োজন করা হয় ভিন রাজ্যের শ্রমিক কবলিত এলাকা কালিয়াচকে।  তৃণমূলের পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষের উদ্যোগে ৪০ ধরনের খাদ্যসামগ্রী বিনামুল্যে দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার কালিয়াচক থানার নওদাযদুপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের যদুপুর হাসপাতাল মাঠে বিনামূল্যেই বাজার কর্মসূচি পালন করা হয়। এদিন এই বিনামূল্যের বাজারে প্রায় পাঁচ হাজার দুঃস্থ মানুষদের ৪০ ধরনের খাদ্য সামগ্রী দিয়ে সাহায্য করেন কালিয়াচক ২ ব্লক পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ সাফিকুল ইসলাম। এদিনের কর্মসূচিতে উপস্থিত হয়েছিলেন কালিয়াচক ১ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি আতিকুর রহমান সহ অন্যান্যরা।

উল্লেখ্য, করোনা সংক্রমণের জেরে লকডাউন মাসখানেক পর হয়েছে। যার ফলে দিন আনে দিন খাওয়া মানুষের প্রায় প্রত্যেকেরই রোজগার হয়ে পড়েছে। গত সাতদিন ধরে লকডাউনের জেরে কালিয়াচক ১ এবং ২ ব্লক জুড়ে বিভিন্ন এলাকায় হরেক রকমের খাদ্য সামগ্রীর বিনামূল্যের বাজার বসিয়ে কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন কালিয়াচক ২ পঞ্চায়েত সমিতির বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষ সফিকুল ইসলাম। এদিন তাঁরই উদ্যোগে যদুপুর হাসপাতাল মাঠে এই কর্মসূচি পালিত হয় । অনুষ্ঠানের শুভ সূচনায় উপস্থিত হয়েছিলেন কালিয়াচক থানার পদস্থ পুলিশ কর্তারা।এদিন বিভিন্ন ধরনের সবজি, আনারস, তরমুজ, মৌসম্বি থেকে শুরু করে চাল, ডাল, সরিষার তেল সহ মোট ৪০ রকমের খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয় প্রায় পাঁচ হাজার মানুষকে।

বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষ সফিকুল ইসলাম বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির অনুপ্রেরণায় আমরা লকডাউনের মধ্যে দুঃস্থ এবং কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে এই কাজ করে চলেছি। যতদিন পর্যন্ত লকডাউন চলবে,ততদিন পর্যন্ত আমরা গরিব মানুষের জন্য খাবার দিয়ে সেবা করে যাব। এদিন নওদা যদুপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা জুড়ে কয়েক হাজার মানুষকে খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। আগামী দিনে এই বাজার চলবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close