fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিনামূল্যের রেশনের আটা থেকে বের হল আঠা ও প্লাস্টিক জাতীয় পদার্থ! চাঞ্চল্য মালদায়

মিল্টন পাল, মালদা: করোনা সংক্রমণের জেরে চলছে লকডাউন। সেই মত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন বিনামূল্যে রেশন সামগ্রী দেওয়া হবে। আর সেই বিন্যমূল্যের রেশনের আটা থেকে বেরোলো আঠা ও প্লাস্টিক জাতীয় পদার্থ। ঘটনাটি মালদা শহরের ইংরেজবাজার পুরো এলাকার ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের শরৎপল্লী এলাকার ঘটনা। এই ঘটনা ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পাশাপাশি একই অভিযোগ ওঠে জেলার একাধিক জায়গা থেকে। আর এই রেশন ব্যবস্থা নিয়ে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রীকে দুষলেন উত্তর মালদার বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু। পাল্টা তোপ তৃণমূল কাউন্সিলরের।

লকডাউনে মানুষ যাতে খাওয়ার নিয়ে কোন সমস্যায় না পরে। সেই কারণে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রেশনে বিনামূল্য খাদ্য সামগ্রী বন্টনের ঘোষণা করে। আর এরপর থেকে কোথাও কম চাল,আবার কোথাও নিম্নমানের খাদ্য সামগ্রী বন্টনের অভিযোগ ওঠে। আর এবার রেশনে বন্টন করা আটার প্যাকেটা আঠা জাতীয় প্লাস্টিক সামগ্রী মেশানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা জানান, ওই এলাকারই রেশন ডিলার জনৈক গৌতম দাসের রেশন দোকান থেকে তারা এই আটা সংগ্রহ করেছিলেন। বাড়িতে এসে দেখতে পায় এক ধরনের প্লাস্টিক জাতীয় আঠার মতন পদার্থ আটার মধ্যে থেকে বেরোচ্ছে। অনেকেই তা না বুঝে খেয়ে ফেলেছেন।বিষয়টি নজরে আসতেই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। পাশাপাশি বাসিন্দারা আরও অভিযোগ করেন দীর্ঘ দিনের মধ্যে তারা এই আটটার তৈরি রুটি খেয়েছেন। আর তাতে শরীরে ক্ষতির কথা ভাবছেন।

যদিও ওই রেশন দোকানের কর্তৃপক্ষ গৌতম দাস বলেন, তারা ডিস্ট্রিবিউটরের কাছ থেকে এই আটা সংগ্রহ করেছিলেন। প্যাকেট ভর্তি আটা ছিল। সেই আটা দেওয়া হয়েছে। তাহলে এই আটা ল্যাবে পরীক্ষা করা হোক।

উত্তর মালদা সংসদ খগেন মূর্মূ বলেন,রেশন দুর্নীতি, যে খারাপ খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয় এই নিয়ে আমরা জেলা প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছি বারেবারে। এই অভিযোগ কখনও কর্ণপাত করা হয়নি। রেশন সামগ্রী লুঠের রাজনীতি তৃণমূল কংগ্রেসের সংস্কৃতিতে দাঁড়িয়েছে। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বাজে খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয়।খাদ্য সামগ্রী সরবরাহ করার ক্ষেত্রে আমরা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রীকে বলেছি। কথাই বলেন তিনি রেশন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছেন কিন্তু বাস্তবে কিছুই নেন না। খাদ্যমন্ত্রী বড় বড় কথা বলেন। এই দুর্নীতির সঙ্গে তার মদত রয়েছে।

১৮ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর আশিস কুন্ডু বলেন, স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছ থেকে অভিযোগ শুনেছি। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আনা হবে। রেশন ব্যবস্থায় কেউ কোনো দুর্নীতি করলে যথাযোগ্য আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমাদের সরকার এর বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছে। বিরোধীরা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ করে রাজনীতি করছে।

Related Articles

Back to top button
Close