fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চালক ও খালাসিকে মারধোর করে ২১ টন ভর্তি রিফাইন ট্যাংকার নিয়ে পলাতক দুষ্কৃতীরা 

সুদর্শন বেরা, পশ্চিম মেদিনীপুর: ডেবরা থেকে খড়গপুর চৌরঙ্গী যাওয়ার মাঝে ২১ টন ভর্তি রিফাইন ট্যাংকার নিয়ে চালক ও খালাসিকে মারধোর করে পালাল দুষ্কৃতীরা। ওই ট্যাঙ্কারের চালক ও খালাসিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করল শালবনী থানার পুলিশ। শুক্রবার এই ঘটনা ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে। ডেবরা টোল প্লাজার গেট পেরোনোর পর রাতের অন্ধকারে দুষ্কৃতীরা ওই ট্যাংকারের ড্রাইভার ও খালাসিকে গাড়ি থেকে নামিয়ে তাদেরকে মারধর করে এবং নেশা সেবন করিয়ে অচৈতন্য করিয়ে শালবনি থানার গোবরু জঙ্গলে হাত পা বেঁধে ফেলে দিয়ে যায় রাতের অন্ধকারে। সেই সুযোগে দুষ্কৃতীরা রিফাইন ভর্তি ট্যাংকারটিকে নিয়ে পালিয়ে যায়।

শালবনি থানার পুলিশ বিশেষ সূত্রে খবর পেয়ে রবিবার সকালে খালাসি মঙ্গল পান্ডে (২৯) ও দুপুরে ড্রাইভার জানকী যাদব (৪২ ) কে হাত পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে শালবনি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতলে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। ড্রাইভারও খালাসির কাছ থেকে জানা যায়, ১৬ ই অক্টোবর শুক্রবার রাত নটার সময় হলদিয়া থেকে মধ্যপ্রদেশের উদ্দেশ্যে ২১ টন রিফাইন ভর্তি ১২ চাকার ট্যাংকার নিয়ে রওনা দিয়েছিলেন তারা। রাত্রি এগারোটা নাগাদ ডেবরা টোল প্লাজার গেট পেরোনোর পর তাদের সঙ্গে এই ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ গাড়িটির খোঁজ চালাচ্ছে এবং তাদের বাড়ির লোকেদের খবর হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, দুষ্কৃতীরা ১২ টন রিফাইন তেল ভর্তি ট্যাংকারটি নিয়ে পালিয়ে গিয়েছে। সেই সঙ্গে ওই গাড়ির চালক ও খালাসিকে নেশা খাইয়ে তাদের হাত পা বেঁধে শালবনি থানার ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে গোবরুর গভীর জঙ্গলে ফেলে দিয়ে যায়। শুক্রবার রাত থেকেই তারা জঙ্গলের মধ্যে পড়ে ছিল। স্থানীয়রা রবিবার জঙ্গলে গিয়ে বিষয়টি দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। শালবনি থানার পুলিশ এসে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। পুলিশ গাড়ির মালিককে বিষয়টি জানিয়েছে। সেই সঙ্গে ছিনতাই করে নিয়ে পালানো গাড়িটির খোঁজে শালবনি থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

Related Articles

Back to top button
Close