fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভরা কোটালের জলে বাঁধ উপছে পড়ে গ্রামে ঢুকে নাজেহাল শ্যামপুরের গাদিয়াড়া ও অনন্তপুরবাসী

পাপ্পা গুহ, উলুবেড়িয়া: ভাদ্র মাসের ভরা কোটালে নদীতে জল বেড়ে যাওয়ায় বাঁধ উপছে জল ঢুকে বিপর্যস্ত শ্যামপুরের গাদিয়াড়া এবং অনন্তপুর। এছাড়াও নদী তীরবর্তী একাধিক এলাকায় জল ঢুকে যাওয়ায় আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ। এদিকে শ্যামপুরের গাদিয়াড়া ও অনন্তপুরে গ্রামে জল ঢোকায় প্লাবিত হয়েছে রাস্তাঘাট থেকে পুকুর এমনকি চাষের জমিও প্লাবিত। আর এর জেরেই ক্ষতির মুখে পড়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা। এদিকে দিনের পর রাতের পুনরায় জোয়ারের জল ঢোকার ক্ষতির আশঙ্কায় আতঙ্কিত গ্রামবাসীরা। যদিও ইতিমধ্যে বাঁধ উপছে জল ঢোকার খবর পাওয়ার পরেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। জল নেমে যাওয়ার পরেই নীচু জায়গায় বালির বস্তা ফেলার কাজ শুরু হবে বলে দাবি সেচ দফতরের কর্তাদের।

স্থানীয় সূত্রে খবর এমনিতেই কয়েকদিন নদীতে জল অনেকটাই বেড়ে রয়েছে তার উপরে কোটালের কারণে বৃহস্পতিবার সেই জল অনেকটাই বেড়ে গেছে। ফলে এদিন সকালে শ্যামপুর ২ নং ব্লকের ডিহিমন্ডলঘাট ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের অনন্তপুর ও আন্টিলাপাড়ার কাছে নদী বাঁধ উপছে হূহূ করে গ্রামে জল ঢুকতে শুরু করে। আতঙ্কিত হয়ে পড়ে সাধারণ মানুষ। নদীর জলে রাস্তাঘাট ডুবে যাওয়ার পাশাপাশি বাড়িতেও জল ঢুকতে শুরু করায় আতঙ্ক ছড়িয়ে মানুষের মধ্যে। এদিকে গ্রামে জল ঢোকার খবর পাওয়ার পরেই সেচ দফতরের কর্তারা গ্রামে পৌছে নীচু জায়গায় বালির বস্তা ফেলার আশ্বাস দেন সেচ দপ্তরের কর্তারা।

স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্য রাতে যদি আবার বাঁধ উপছে জল ঢোকে সেই কারণে এই কারণে রাত জেগে বাঁধ পাহারা দিতে হবে। এই প্রসঙ্গে হাওড়া জেলা পরিষদের উপাধক্ষ্য নদেবাসী জানা জানান নীচু এলাকা দিয়ে উপছে জল গ্রামে ঢুকেছে জল নেমে গেলে বালির বস্তা ফেলে নীচু জায়গা উচু করা হবে। অন্যদিকে এদিন সকালে গাদিয়াড়ার কাছেও খেঁজুরতলায় বাঁধ উপছে গ্রামে জল ঢোকে। পাশাপাশি এদিন উলুবেড়িয়া কালীবাড়ি পার্কের একাংশ, পূর্ব কালিনগর, ১১ফটক, উলুবেড়িয়া ট্রেজারি ব্যারাকেও জল ঢুকে যাওয়ায় সমস্যায় পড়ে সকলে।

Related Articles

Back to top button
Close