fbpx
দেশহেডলাইন

গ্যাস সিলিন্ডার ফেটে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড দিল্লি-থানেতে, পৃথক ঘটনায় মৃত ১, আহত বহু

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: গ্যাস সিলিন্ডার ফেটে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটল। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিল্লির তিগরি এলাকায়। ঘটনার জেরে কমপক্ষে ১৪ জন জখম হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় বিস্ফোরণের জেরে রান্নার গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভোররাত পর্যন্ত কোনও মৃত্যুর খবর নেই। দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর, সন্ধে ৭টা নাগাদ থানায় অগ্নিকাণ্ডের খবর এলে, দমকলের আটটি ইঞ্জিনকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। আগুন লাগে জে জে ক্যাম্প তিগরি অঞ্চলে। এলাকাটি ঘিঞ্জি জনবসতিপূর্ণ হওয়ায়, আগুন নেভাতে বেগ পেতে হয় দমকল কর্মীদের। গভীর রাত পর্যন্ত ১৪ জন জখমকে হাসপাতালে ভর্তি করার খবর নিশ্চিত করে পুলিশ। তবে কারও মৃত্যুর খবর নেই।

      আরও পড়ুন : অন্ধ্রপ্রদেশের কোভিড সেন্টারে দুর্ঘটনা… শোকজ্ঞাপন রাষ্ট্রপতি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ (দক্ষিণ) অতুলকুমার ঠাকুর রাতে জানান, রান্নার গ্যাস সিলিন্ডার ফেটেই চারপাশে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। একজন মহিলা-সহ ১৪ জন আহত হয়েছেন। পুলিশকর্তা জানান, অগ্নিদগ্ধ বছর ৩৫-এর এক মহিলার অবস্থা আশঙ্কাজনক। আহতরা সকলেই সফদরজং হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ডিসিপি জানান, তিগরি এলাকার ওই অঞ্চল অত্যন্ত ঘন জনবসতিপূর্ণ। ফলে, আগুন নেভাতে গিয়ে দমকলকর্মীরা সমস্যায় পড়েন। দমকলের ইঞ্জিন ঢোকার মতো পরিসর রাস্তা ছিল না। যে কারণে আগুন নেভাতে দেরি হয়।

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানায়, তিগরির একটি ঝুপড়ি ঘর থেকেই আগুনের সূত্রপাত। রান্না করছিলেন এক মহিলা। সেসময় সিলিন্ডারে কোনও ভাবে আগুন লেগে যায়। ঘরের ভিতরে সেসময় ওই মহিলা, তাঁর স্বামী ছাড়াও দেওরের পরিবারের সকলে ছিলেন। সিলিন্ডারের আগুন থেকে বিস্ফোরণের আশঙ্কায় ছুট্টে তাঁরা ঘর থেকে বেরিয়ে যান। গ্যাস সিলিন্ডারের আগুন নেভানোর সাহস পাননি। ততক্ষণে আগুনের তাপে সিলিন্ডার ফেটে চারপাশের ঝুড়ড়ি ঘরগুলিতে আগুন ছড়ায়। পুড়ে জখম হন ১৪ জন। আহতরা সকলেই প্রতিবেশী। এই ঘটনায় পুলিশ একটি মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে।

অন্য দিকে, মহারাষ্ট্রের থানের উলহাসনগর শহরে অপর এক সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনায় একজন মারা গিয়েছেন। জখম আরও ১১ জন। জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তি একটি খাবারের দোকানের মালিক। গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের জেরেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে থানে পুলিশ নিশ্চিত করে। থানে পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনাটি ঘটে শনিবার বেলায়। সেসময় ওই খাবারের দোকানে রান্নাবান্না চলছিল। গ্যাস সিলিন্ডারের সামনেই ছিলেন দোকানের মালিক পাপ্পু গুপ্তা। বিস্ফোরণস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। তাঁর আশপাশে থাকা আরও ১১ জন গুরুতর জখম হয়েছেন।

দমকলের ইঞ্জিন ছাড়াও ডিজাস্টার কন্ট্রোলের একটি টিম গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ১১ জন লোকাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর মধ্যে তিন জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের কদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close