fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সমবায় সমিতি থেকে মিলছে না অর্থ, ফাঁপড়ে একাধিক গ্রামবাসী

নিজস্ব প্রতিনিধি,ঘাটাল: সমবায় সমিতিতে নিজেদের লক্ষ লক্ষ টাকা সমবায় সমিতিতে গচ্ছিত রেখে ফাঁপড়ে একাধিক গ্রামবাসী।প্রয়োজনের সময় টাকা না পেয়ে তারা এখন আতান্তরে।এমনই ঘটনা পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা ১ নম্বর ব্লকের লক্ষ্মীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের মৌলা পরমানন্দপুর সমবায় সমিতির শতাধিক গ্রাহকের।
জানাযায়, বামুনিয়া, ধুলিয়াডাঙ্গা, মৌলা,পরমানন্দপুর সহ বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষ নিজের জমানো টাকা রেখেছিলেন সমবায় সমিতিতে আর সেই সমবায় সমিতিতে নিজেদের জমানো টাকা তুলতে গিয়ে হতাশ হচ্ছেন তারা, টাকা দিচ্ছেন না সমবায় কর্তৃপক্ষ। এতেই আটান্তরে পড়েছে তারা।

নিজেদের গচ্ছিত টাকা ফেরতের দাবিতে সবাই সমিতি থেকে শুরু করে ব্লক প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছে গ্রামবাসীরা। এলাকাবাসীদের দাবি তাদের জমানো টাকা তারা রেখেছিল সমবায় সমিতিতে, কিন্তু সেই টাকা তুলতে গেলে তাদের টাকা দিচ্ছেনা সমবায় কর্তৃপক্ষ বারেবারে তারিখে পর তারিখ দিয়ে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে তাদের।
এমনই সমবায় সমিতিতে টাকা রেখে মাথায় হাত মৌলা গ্রামের অশোক মিদ্যার। অশোকের অভিযোগ একাউন্টে রয়েছে ৪২ হাজার টাকা বাড়িতে মেয়ের বিয়ে তাই টাকার প্রচুর প্রয়োজন, কিন্তু বারে বারে সমবায় সমিতিতে এসেও মেলেনি টাকা।
অফিস খোলা থাকলেও দেখা মেলেনি সমবায় সমিতি কর্তৃপক্ষের, ফিরে যেতে হয়েছে তাদের। এমনি মৌলা পরমানন্দপুর গ্রাম কমিটির রয়েছে প্রায় ১ লক্ষ টাকা ওই সমিতিতে , তারা তুলতে পারছে না সেই টাকা । এরকম একাধিক মানুষের লক্ষাধিক টাকা না পেয়ে ব্লক প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছে তারা।
সকলের অভিযোগ দুর্নীতি করছে সমবায় সমিতির ম্যানেজার তিনি দিচ্ছেন না টাকা । যোদিও সমবায় সমিতির ম্যানেজারের মধূসুধন নায়কের দাবি তিনি নাকি কয়েকদিন আগেই অবসর নিয়েছেন, তবুও তিনি মাঝে মাঝে অফিসে আসেন হিসেব-নিকেশের জন্য!
অথচ তিনি গ্রাহকদের টাকার বিষয়ে কিছুই বলতে পারবেন না।
এ বিষয়ে সমবায় সমিতির চন্দ্রকোনা ১ নম্বর ব্লকের, সি আই অর্পিতা ঘোষ বলেন”সমিতিতে একটি আর্থিক তছরুপের ব্যাপারে জেলা আধিকারিকরা তদন্ত করছে, তদন্ত মিটে যাওয়ার পরে সমস্ত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। আর বিশেষ ফান্ড তৈরি করে দ্রুত কিছু গ্রাহকদের টাকা দেওয়া হবে বলে জানালেন তিনি। বিশেষ সুত্রে জানাযায় সমবায় সমিতির ম্যানেজারের দুর্নীতির জন্যই গ্রাহকদের ভুগতে হচ্ছে এই ফল
আর এদিকে কবেই টাকা দেবে সমবায় সমিতি এই ভেবে চার মাস ধরে চিন্তায় পড়ে রয়েছে অধিক মানুষ।

Related Articles

Back to top button
Close