fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রাক্ষসের প্রশাসনকে দূর করে দিয়ে রামের প্রশাসনকে উপহার দিন: ভারতী ঘোষ

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাট: নির্ধারিত সময় থেকে কিছুটা দেরি হলেও মানুষজন বৃষ্টি মাথায় নেত্রীর বক্তব্য শোনার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। শনিবার সন্ধ্যায় মঞ্চে পা রাখা সঙ্গে সঙ্গে স্লোগান উঠলো অনেক হয়েছে তারা হাতুড়ি, অনেক হয়েছে তৃণমূল, এবার ফোটান পদ্মফুল। স্লোগান থামার পর পশ্চিমবাংলার ভারতীয় জনতা পার্টির সভানেত্রী ভারতী ঘোষ বললেন, ‘আপনাদের জনাদেশ রাক্ষসের প্রশাসনকে দূর করে দিয়ে রামের প্রশাসনকে উপহার দিন। বৃষ্টি মাথায় মানুষজন হাততালি দিয়ে জানান দিল আমরা আছি আপনার পিছনে। কোলাঘাট ব্লকের খন্যাডিহি বাজারে আর নয় অন্যায় সংকল্পে প্রতিবাদ সভায় যোগ দিতে এসে ছিলেন প্রাক্তন আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষ। শাসক দলের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করে তিনি বললেন, ১১ সাল থেকে ক্ষমতায় তৃণমূল কংগ্রেস আপনাদের কাছে প্রশ্ন এতগুলো অমূল্য সময় অতিবাহিত হয়ে যাওয়ার পরও শীতঘুম কাটছে না কেন এই সরকারের। দুর্নীতিতে জড়িত, সারদা নারদা কাটমানিতে নেতা-নেত্রীরা ভুরি ভুরি টাকা আখের গুছিয়ে নিয়েছে, মানুষকে ভাঁওতা দিচ্ছে শিল্প বাংলার বুকে হবে।

প্রথম বাণিজ্য সম্মেলনে শোনা গিয়েছিল এখনও বলা হচ্ছে শিল্প হবে, হয়েছে সেটা বোমা শিল্প বিজেপি কর্মী দীপক মন্ডলের মতো যুবকের মৃত্যু হয়েছে এটা লজ্জার। করোনায় শ্রমিকদের অবস্থা ভয়াবহ। প্রধানমন্ত্রীর গরীব কল্যাণ যোজনা টাকা দিতে পারতেন বিপদের দিনে ভালো করে বাঁচতে পারতেন শ্রমিকরা কিন্তু করলেন না। পুলিশ প্রশাসন নিয়ে এত বড়াই, ২০২১ সালে কিন্তু পুলিশ থাকবে না সাহসের সঙ্গে তর্জনী দিয়ে আপনার গণতন্ত্রের বোতাম টিপে বাংলার বুকে অব্যবস্থার জবাব দিন। বাংলায় বিহারীবাবুকে এনে যতই ডুবো নৌকাকে বাঁচানোর চেষ্টা করুক নৌকা ডুববে।এদিনের এই প্রতিবাদ সভা থেকে কোলাঘাট ব্লকের বিভিন্ন এলাকায় তৃণমূল সিপিএম ছেড়ে তিন শতাধিক কর্মীর হাতে বিজেপির পতাকা তুলে দিলেন, সেই সঙ্গে শপথ গ্রহণ করালেন প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের বাণী ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ’ পথে চলে বাংলার বুকে পরিবর্তন আনার। এই প্রতিবাদ সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তমলুক জেলা সাংগঠনিক বিজেপি সভাপতি নবারুণ নায়েক, সম্পাদক দেবব্রত পট্টনায়েক, সংখ্যালঘু মোর্চার রাজ্য নেতা শেখ সাদ্দাম হোসেন, পর্যবেক্ষক অলক কুণ্ডু, বিশ্বনাথ ব্যানার্জি, সাহেব দাস প্রমূখ নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত বিজেপি নেত্রী উমা ভারতী

মঞ্চ ছাড়ার আগে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে ভারতী ঘোষ বলেন, ময়নায় বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে ঘরে বোমা রাখার তথ্য দিয়ে কেস সাজাচ্ছে। আসলে তৃণমূল সরকারের পায়ের তলার জমি ধীরে ধীরে নষ্ট হচ্ছে আর তাতেই নানা পন্থা অবলম্বন করে বাঁচার চেষ্টা করছে। মানুষ কিন্তু ঘরে বসে নেই মানুষ বাইরে বেরিয়েছে তার প্রতিবাদ করতে শুরু করেছে,এই প্রতিবাদটা ২১ সালের নির্বাচনে দেখতে পাবেন।

Related Articles

Back to top button
Close