fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শিবের মাথায় জল ঢালতে গিয়ে দামোদরে তলিয়ে গেল ৪ পড়ুয়া, মৃত ৩

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: শ্রাবণের সোমবার। পুণ্যতিথিতে গ্রামের শিবের মাথায় জল ঢালতে দামোদরে জল আনতে গিয়েছিল। নদীতে জল তুলতে গিয়ে স্রোতের টানে তলিয়ে চার পড়ুয়া। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে অন্ডালের কুঠিরডাঙা এলাকায়। খবর পেয়ে উদ্ধার কাজে নামল এনডিআরএফ ও সিভিল ডিফেন্সের প্রতিনিধি দল। গ্রামেরই চার মেধাবী পড়ুয়ার একসঙ্গে তলিয়ে যাওয়ায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে দুর্গাপুর গোপালমাঠে।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, তলিয়ে যাওয়া পড়ুয়াদের নাম  সব্যসাচী মুখোপাধ্যায়, রাহুল মান্ডি, সৌরভ মন্ডল ও শিবু দাস। তাঁদের সকলের বয়স প্রায় ১৮ বছর। তলিয়ে যাওয়া চার পড়ুয়া দুর্গাপুর গোপালমাঠের বাসিন্দা। এদিন বিকাল পর্যন্ত তিনজনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, রাহুল মান্ডি উচ্চমাধ্যমিক পাঠ্যরত। বাকি তিনজন এবারে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছে। সকলেই মেধাবী ছাত্র ছিল। সব্যসাচী মুখোপাধ্যায় অল ইন্ডিয়া জয়েন্টে ইন্জিনিয়ারিং পরীক্ষায় ৯২ শতাংশ নম্বর পেয়েছে। এছাড়াও সৌরভ মন্ডল এবারে উচ্চমধ্যমিকে ৪১৮ নম্বর পেয়েছে। ঘটনায় পরিবার সুত্রে জানা গেছে, সোমবার গ্রামের মন্দিরে শিবের মাথায় জল ঢালার জন্য অন্ডালের কুঠিরডাঙা এলাকায় জল আনতে গিয়েছিল ছয় বন্ধু। নদীতে নেমে স্নানের সময় একজন স্রোতের টানে তলিয়ে যায়। বন্ধুকে বাঁচাতে বাকি তিনজন নেমে পড়ে। স্রোতের পাশাপাশি জলের ঘুর্নী থাকায় চার জনেই তলিয়ে যায়। পরিস্থিতি দেখে বাকি দুই বন্ধু গ্রামে ছুটে যায়। এবং বাড়ীতে ও গ্রামবাসীদের খবর দেয়। খবর পেয়ে গোপালমাঠ থেকে পরিবারের লোকজন গ্রামবাসীরা ছুটে যায়। গ্রামবাসীরা খোঁজাখুজি শুরু করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় অন্ডাল থানার পুলিশ, সিভিল ডিফেন্স ও এনডিআরএফের টিম। শুরু তল্লাশী অভিযান। দুপুরের পর থেকে এক এক করে মৃতদেহ উদ্ধার হয়। এদিকে ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে আসে গ্রামে।

উল্লেখ্য, বছর দুয়েক আগে মকরসংক্রান্তির দিন স্নান করতে নেমে তলিয়ে গিয়েছিল গোপালমাঠ গ্রামেরই দুই যুবকের। তারপর এদিনের ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে নদীর গভীরতায়। অভিযোগ, একসময় অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের ফলে গভীর খাদ তৈরী হয়েছে নদী গর্ভে। ফলে গভীরতা অনুমান করতে পারা যায় না ওই জায়গায়। দুর্গাপুরের বিধায়ক বিশ্বনাথ পাড়িয়াল জানান,” ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। জায়গাটায় ঘুর্নী রয়েছে। খুবই বিপদজ্জনক। তাই প্রশাসনকে বলেছি, উৎসব অনুষ্ঠানের সময় ওই এলাকায় নজরদারির জন্য। এবং সতর্কিত সাইনবোর্ড লাগানোর জন্যও বলা হয়েছে।” অন্ডাল বিডিও ঋত্বিক হাজরা জানান,” উদ্ধার কাজ চলছে। বিকাল পর্যন্ত তিনজনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে।”

Related Articles

Back to top button
Close