fbpx
আন্তর্জাতিকআমেরিকাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

জো বাইডেনের জন্য ভোট চাইলেন জলবায়ুকর্মী গ্রেটা

স্টকহোম, (সংবাদ সংস্থা):  মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ঘিরে নয়া চমক। কোন নির্বাচনী ক্যাম্পেন নয়,  সরাসরি প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেনকে ভোট দিতে মার্কিন ভোটারদের অনুরোধ জানিয়েছেন হিসাবে পরিবেশকর্মী গ্রেটা থানবার্গ। টুইটারে তিনি লিখেছেন “জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে বৈশ্বিক লড়াইয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।”

 

জলবায়ু আন্দোলন ‘ফ্রাইডে ফর ফিউচারের’ প্রতিষ্ঠাতা সুইডেনের ১৭ বছর বয়সী গ্রেটা টুইট বার্তায় লিখেছেন, “আমি কখোনোই দলীয় রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলাম না। কিন্তু আসন্ন মার্কিন নির্বাচন এসব কিছুর ঊর্ধ্বে।” এরপর গ্রেটা লিখেছেন, “জলবায়ু পরিবর্তন থেকে এটা অনেক দূরে। আপনারাও অনেকেই অন্যান্য প্রার্থীকে সমর্থন দিচ্ছেন। কিন্তু আমি বলছি যে, আর আপনারাও জানেন, ‘জঘন্য’। সংগঠিত হোন এবং বাইডেনকে ভোট দিন।” একই সঙ্গে গ্রেটা থানবার্গ যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের পরিবেশ নিয়ে উদ্বিগ্ন ভোটারদের তাদের দাবি জোরালোভাবে তুলে ধরারও আহ্বান জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: দুর্গাপুজো নিয়ে এবার বাংলাদেশে নতুন নির্দেশিকা, প্রসাদ বিতরণ-আরতি প্রতিযোগিতা নিষেধ

বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি জলবায়ু কর্মী গ্রেটা থানবার্গের বিরক্তির কারণ হিসেবে জানা যাচ্ছে, জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিকে টাম্পের সেভাবে গুরুত্ব না দেওয়া। তাছাড়া, ট্রাম্প সাধারণত গ্রেটাকে পছন্দ করেন না এবং তাকে নিয়ে নানা নেতিবাচক মন্তব্য করেছেন ট্রাম্প। একবার এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প লিখেছিলেন, ‘গ্রেটাকে অবশ্যই তার রাগ নিয়ন্ত্রণ সমস্যা নিয়ে কাজ করতে হবে। এর পর এক বন্ধুর সঙ্গে দেখতে যেতে হবে পুরনো ধাঁচের সিনেমা। উল্লাস করো গ্রেটা উল্লাস।” আর অপরদিকে গ্রেটার সঙ্গে দেখা করেছেন ওবামা প্রশাসনের প্রাক্তন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় গ্রেটার লড়াইয়ের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ব্যাপক প্রশংসাও করেছিলেন তিনি। আর, তাতেই গেট্রা  মুগ্ধ হয়ে জো বাইডেনকে আগামী প্রেসিডেন্ট হিসাবে দেখতে চাইছেন।

 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে সুইডেনের পার্লামেন্টের সামনে স্কুল ছুটির দিন শুক্রবার জলবায়ু ধর্মঘট করে বিশ্বব্যাপী জলবায়ু আন্দোলনের সূচনা করে গ্রেটা থানবার্গ। বিষয়টি সারা বিশ্বে আলোড়ন তুলে দেয়। এরপর ২০১৯ সালে গ্রেটা থানবার্গকে ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ খেতাব দেয় টাইম ম্যাগাজিন।

 

Related Articles

Back to top button
Close