fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

ছড়াবে গোষ্ঠী সংক্রমণ, ডিসেম্বরের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হবেন ৫০ শতাংশ ভারতীয়! দাবি গবেষকদের

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: করোনা সংক্রমণ নিয়ে উদ্বেগের তথ্য দিলেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ মেন্টাল হেল্থ অ্যান্ড নিউরো সায়েন্সের (এনআইএমএইচএএনএস) গবেষকরা। তাঁদের দাবি, জুন মাস থেকেই দেশে ভয়ঙ্কর আকার নিতে শুরু করবে করোনা। ছড়াবে গোষ্ঠী সংক্রমণ। ডিসেম্বর মাসের মধ্যে ১৩০ কোটি ভারতবাসীর অর্ধেক মানুষ করোনা সংক্রমিত হবেন। শুধু তাই নয়, সব থেকে বড় উদ্বেগের বিষয় হলো, এই আক্রান্তের মধ্যে ৯০ শতাংশ মানুষের করোনা সংক্রমণের বিশেষ নমুনা দেখা দেবে না। যার ফলে তাঁরা বুঝতেই পারবেন না যে করোনা তাঁদের শরীরে থাবা বসিয়েছে।

এই আশঙ্কার কথা প্রকাশ করে এনআইএমএইচএএনএস-এর নিউরোবিরোলজির প্রধান তথা কর্ণাটক হেল্থ টাস্ক ফোর্সের নোডাল আধিকারিক ভি রবি বলেন, ‘দেশ এখনও সংক্রমণের ভয়াবহতা উপলব্ধি করতে পারেনি। আমাদের আশঙ্কা, করোনা সংক্রমণের হার জুনের পর থেকে দ্রুত গতিতে বাড়বে। শুরু হবে গোষ্ঠী সংক্রমণও।ডিসেম্বরের মধ্যেই দেশের ৫০ শতাংশ মানুষ  করোনা সংক্রমিত হবেন। কিন্তু সেই সংক্রমণের এখনকার মতো কোনও উপসর্গ না থাকায় ৯০ শতাংশ মানুষ বুঝতেই পারবে না।’

তবে এই আশঙ্কার মধ্যেই আশার কথা শুনিয়ে তিনি বলেন, এই আক্রান্তের মধ্যে হয়তো মাত্র ৫ শতাংশকেই ভেন্টিলেশনে রাখার প্রয়োজন হতে পারে। মৃত্যুর হার তুলনামূলক কমই থাকবে। ৩ থেকে ৪ শতাংশ। ইবোলা বা মার্সের মতো ততটা ভয়ংকর নয় করোনা ভাইরাস। হয়তো এই ভাইরাসকে সঙ্গে নিয়েই বাঁচতে হবে।তবে সচেতনতাই আমাদের একমাত্র রক্ষাকবচ। তাই সংক্রমণ রুখতে সতর্ক থাকা জরুরি।’

মৃত্যু হার যাতে কোনও ভাবেই না বাড়ে তার জন্য প্রত্যেকটি রাজ্যকে এখন থেকেই আগাম প্রস্তুতি নেওয়ার বার্তা দিয়ে তিনি বলেন, ‘এই ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রতিটি রাজ্যকেই তৈরি থাকতে অনুরোধ করছি।চিকিৎসা পরিকাঠামো যাতে উপযুক্ত হয় তা সুনিশ্চিত করুন। সংক্রমণ চিহ্নিত করার জন্য আরও বেশি পরীক্ষা করুন।’

Related Articles

Back to top button
Close