fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

গাছের ডালে যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার, তদন্তে পুলিশ

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর : এক যুবকের রহস্যজনক মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল সোদপুরের রাজা রোড এলাকায়। রাজা রোডে বড় একটি গাছের ডালে ওই যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ হয়। মৃত যুবকের নাম বিষ্ণু শর্মা (২৭) বলে জানা গেছে। তার বাড়ি খড়দহ থানার অন্তর্গত ২ নম্বর সুভাষ নগর এলাকায় বলে জানা গেছে। পুলিশ ওই যুবকের দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। এদিকে ওই যুবকের মৃত্যু নিয়ে রহস্য দানা বেঁধেছে। যুবকের গলায় ফাঁস দেওয়া দেহ উদ্ধার হলেও তার পা মাটিতে দাড়ানো অবস্থায় ছিল। তা থেকে স্থানীয়দের অনেকেরই সন্দেহ ওই যুবককে বাইরে খুন করে রাস্তার পাশে গাছে দেহ ঝুলিয়ে দিয়ে গেছে দুষ্কৃতীরা। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে খড়দহ থানার পুলিশ।

রাস্তার পাশে গাছের ডালের সঙ্গে গলায় দড়ি বাঁধা অবস্থায় যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহের রাজা রোড এলাকায়। শুক্রবার বিকেল থেকে সে নিখোঁজ ছিল। শনিবার সকালে প্রাতঃভ্রমন কারীরা সোদপুর রাজা রোড দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় ওই যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পায়। এই ঘটনায় শনিবার সকালে রাজা রোড এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা এদিন সকালে দেখতে পায়, রাজা রোডে রাস্তার পাশে একটি বড় গাছের সঙ্গে বিষ্ণুর দেহ ঝুলছে, তবে তার পা মাটিতে ঠেকানো ছিল । এলাকার বাসিন্দাদের কাছ থেকে মৃতদেহ উদ্ধারের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসে খড়দহ থানার পুলিশ। পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মৃত ওই যুবক সম্প্রতি মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। বর্তমানে সে ঠিক শ্রমিকের কাজ করত। আগে টোটো চালাত। স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় স্ত্রী বিষ্ণুকে ছেড়ে চলে গেছে কিছু দিন আগে। শুক্রবার বিকেলের পর সে আর বাড়ি ফেরে নি। শনিবার সকালে তার ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

খড়দহ থানার পুলিশ জানিয়েছে, মৃতদেহ ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে আসলে তবেই মৃত্যুর কারন স্পষ্ট হবে। স্থানীয় বাসিন্দারা অনেকেই অনুমান করছে, বিষ্ণুকে কেউ খুন করে থাকতে পারে। মৃতের পরিবারের সদস্যরা পুলিশের কাছে নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানিয়েছে । খড়দহ থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Related Articles

Back to top button
Close