fbpx
অসমকলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

অমিত শাহর নির্দেশে হরি-গুরুচাঁদের নাম কূটক্তিকারি কুলদীপ আগরতলায় গ্রেফতার

রক্তিম দাশ, কলকাতা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  অমিত শাহ-র চিঠি পাওয়ার পরেই নড়েচড়ে বসল ত্রিপুরা প্রশাসন। সোশ্যাল মিডিয়ার মতুয়াদের প্রধান ধর্মগুরু হরি-গুরুচাঁদের নামে কূটক্তিকারি কৃষ্ণপুত্র রাধে ওরফে কূলদীপ চক্রবর্তীকে বুধবার আগরতলায় গ্রেফতার করল পুলিশ। এদিনই কূলদীপকে আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে তদন্তের স্বার্থে জেল হেফাজতে পাঠিয়েছেন।

সম্প্রতি ফেসবুকে কৃষ্ণপুত্র রাধে নামে এক ব্যক্তি মতুয়া সম্প্রদায়ের প্রর্বতক হরিচাঁদ ও গুরুচাঁদ ঠাকুরের ছবি বিকৃত করে অশ্লীল বাক্য লিখতে থাকেন। এরফলে বাংলার নমশুদ্র সম্প্রদায়ের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ দেখা দেয়। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে বাংলা সহ দেশ জুড়ে বিভিন্ন থানায় সাইবার ক্রাইমে অভিযোগ জানান মতুয়ারা। পুরো ঘটনার তদন্ত করে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে শাস্তির দাবিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে চিঠি লিখে আবেদন জানান অল ইন্ডিয়া মতুয়া মহাসংঘের সংঘাধিপতি সাংসদ শান্তনু ঠাকুর এবং বাগদার বিধায়ক তথা বিজেপির এসসি মোর্চার রাজ্য সভাপতি দুলাল বর।
খোঁজ নিয়ে জানা গিয়েছে, ত্রিপুরার আগরতলা বসবাসকারি কৃষ্ণপুত্র রাধে নামে ওই ব্যক্তির আসল নাম কুলদীপ চক্রবর্তী। তিনি ফেসবুকে ছদ্মনামে একটি একাউন্ট খুলে ধারাবাহিক ভাবে এই কাজ করে যাচ্ছেন। মঙ্গলবার বিষয়টি নিয়ে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবকে চিঠি লেখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এই চিঠিতে তিনি ঘটনার অনুসন্ধান করে দ্রুত ব্যবস্থার নেওয়ার কথা বলেন। আর তারপরই নড়েচড়ে বসে ত্রিপুরার প্রশাসন।
মতুয়া মহাসংঘের ত্রিপুরা শাখার সঙ্গে যুক্ত প্রাক্তণ সিজিএম প্রকাশ বিশ্বাস যুগশঙ্খকে বলেন, ‘বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার সময় এসডিপিও অরিন্দম দাসের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী আগরতলা থেকে ২ কিমি দূরে অরুন্ধুতি নগরে বাড়ি থেকে কূলদীপকে গ্রেফতার করে। এদিন দুপুরেই তাকে পূর্ব ত্রিপুরা এসিজিএমের আদালতে তোলা হয়। অভিযুক্ত কূলদীপের বিরুদ্ধে ১৫৩এ এবং ২৯৫এ জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা করে পুলিশ। এদিন পুলিশের পক্ষে আইনজীবি দীপা ভট্টাচার্য তদন্তের স্বার্থে অভিযুক্তকে তিনদিনের পুলিশি রিমা-ে চান। অপর দিকে অভিযুক্তের আইনজীবি ডি সাহা জামিনের আবেদন করেন। কিন্তু বিচারক তা খারিজ করে কূলদীপকে আগামী ৪ আগস্ট পর্যন্ত জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন।’
জানা গিয়েছে, মঙ্গলবারই পুর্ব আগরতলা থানায় কূলদীপের বিরুদ্ধে অল ইন্ডিয়া মতুয়া মহাসংঘের পক্ষ থেকে এফআইআর করা হয়। এই কপিটি অরুন্ধুতি নগর থানায় রেজিস্ট্রার করা হয় সঙ্গে সঙ্গেই। তারপরই এদিন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল পুুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close