fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

পুলিশি বাধা আটকাতে পারল না! আজ ফের হাথরাসের পথে রাহুল, যেতে পারেন অখিলেশও

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ধর্ষিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে উত্তরপ্রদেশের হাতরসে ঢুকতে চেয়ে পুলিশের ধাক্কায় মাটিতে পড়ে গিয়েছেন। আজ অর্থাত্‍ শনিবার ফের হাতরসে ধর্ষিতার গ্রামে ঢোকার চেষ্টা করবেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি। সূত্রের খবর, সঙ্গে থাকবেন দলের সব সাংসদ। এদিন হাথরাস যেতে পারেন সমাজবাদী পার্টি নেতা তথা উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবও।

নির্যাতিতা তরুণীর পরিবারের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে পুলিশ এবং স্থানীয় প্রশাসনের প্রবল বাধার মুখে পড়েছিলেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। বৃহস্পতিবার তাঁদের আটকে দেওয়ার সেসব ছবি দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছিল সংবাদমাধ্যমে। পুলিশের ভূমিকায় তীব্র নিন্দার ঝড় উঠেছিল। কিন্তু সেই বাধা টলাতে পারেনি জেদ। আজ ফের হাথরাসের পথে পা বাড়াচ্ছেন রাহুল গান্ধী। সূত্রের খবর, সঙ্গে থাকবেন দলের সব সাংসদ। উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগ দাবি করেছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি বঢরা। অন্যদিকে হাতরসের গ্রামের তথাকথিত সমাজের উচ্চশ্রেণির সদস্য নিয়ে গঠিত পঞ্চায়েত অভিযুক্ত ধর্ষকদেরই পক্ষে দাঁড়িয়েছে। একই সঙ্গে এই অপরাধের সিবিআই তদন্তেরও দাবি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার কংগ্রেসের পর শুক্রবার হাথরাসের নির্যাতিতা তরুণীর গ্রামের পথ ধরেছিলেন তৃণমূলের প্রতিনিধিদল। কিন্তু পথেই বাধা তৈরি করে পুলিশ, প্রশাসন। প্রতিনিধিদলের নেতা তথা রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েনকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়। আপত্তিকর আচরণ করা হয় দলের মহিলা সদস্যদের সঙ্গে। এবার সেই আচরণের বিরোধিতায় প্রশাসনিক কর্তার বিরুদ্ধে পুলিশের দ্বারস্থ হলেন তৃণমূল সাংসদ প্রতিমা মণ্ডল এবং প্রাক্তন সাংসদ মমতাবালা ঠাকুর। হাথরাসের SDM’এর বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করলেন। মহিলাদের সঙ্গে অভব্য আচরণের অভিযোগ জানানো হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, মহিলাদের সুরক্ষার বিষয়ে উত্তরপ্রদেশ সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। অভিযুক্তদের কড়া শাস্তি হবে। ইতিমধ্যেই এসপি, ডিএসপি সহ ৫ পুলিশকর্তাকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: হাথরস ইস্যুতে যোগী আদিত্যনাথকে উপদেশ উমার

যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগ দাবি করছেন ভীম আর্মির প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদও। তাঁর কথায়, ‘যতক্ষণ না যোগী আদিত্যনাথ পদত্যাগ করছেন এবং সুপ্রিম কোর্টে মামলার বিচার হবে, ততক্ষণ হতরসের ধর্ষিত যুবতী ন্যায় বিচার পাবেন না। এই ধর্ষকদের দ্রুত কঠিন সাজা হওয়া উচিত, যাতে অন্যান্যরা এই ধরনের অপরাধ করার আগে দু বার ভাবে।’ উত্তরপ্রদেশে সরকার ও পুলিশের সমালোচনা করেছেন বিজেপি নেত্রী উমা ভারতীও। তিনি উত্তরপ্রদেশ সরকার ও মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন, হাতরসের ওই গ্রামে সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদদে ঢুকতে দেওয়া হোক। তাঁদের ধর্ষিত যুবতীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়ার অনুমতি দেওয়া উচিত।

অন্যদিকে, হাথরাসে তৃণমূল প্রতিনিধিদের পুলিশি বাধার প্রতিবাদে আজ পথে নামছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে। বিকেলে বিড়লা তারামণ্ডল থেকে ধর্মতলা পর্যন্ত প্রতিবাদ মিছিলে হাঁটবেন তিনি। একই দিয়ে মৌলালি থেকে ধর্মতলা পর্যন্ত যৌথ মিছিলে ডাক দিয়েছে বাম ও কংগ্রেস।

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close