fbpx
কলকাতাহেডলাইন

জল্পনা বাড়িয়ে কলকাতা বিমানবন্দরে এবার ‘হক’ ফাইটার জেটের মহড়া

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: ভারত-চিন সীমান্তবর্তী যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি নিয়ে কূটনৈতিক স্তরে কথাবার্তা চললেও যুদ্ধ শুরুর সম্ভাবনা এখনও তৈরি হয়নি। এর মধ্যেই শনিবার  সকালে কলকাতায় হয়ে গেল বায়ুসেনার হক ফাইটার জেটের মহড়া। কলাইকুন্ডার বিমানঘাঁটি থেকে দুটি হক যুদ্ধবিমান কলকাতা বিমানবন্দরে এসে এদিন সকালে একাধিক বার মহড়া দিয়ে গিয়েছে। যদিও বায়ুসেনার তরফে জানানো হয়েছে, কোনও বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে মহড়া হয়নি। বায়ুসেনার বিমানচালকদের অসামরিক বিমানবন্দর থেকে ওঠানামায় সড়গড় করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

 

জানা গিয়েছে, কলকাতা ছাড়াও অন্ডাল ও উত্তর-পূর্ব ভারতের পাসিঘাট, তেজু, গুয়াহাটি-সহ ৬টি বিমানবন্দরে এমনই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে বায়ুসেনা। ইদানিং চিনের সঙ্গে ভারতের সীমান্ত বিরোধের প্রেক্ষিতে এই মহড়া যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ, মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। গত দু’দিন বায়ুসেনার জোড়া হক যুদ্ধবিমান কলকাতা থেকে রওনা হয়ে কলাইকুন্ডার আকাশে মহড়া দিয়ে ফিরে আসে কলকাতা বিমানবন্দরে। যুদ্ধ পরিস্থিতিতে যাতে কলকাতা বিমানবন্দর নিয়মিত ব্যবহার করা সম্বব হয়, সেই উদ্দেশেই মহড়ার ব্যবস্থা করেছে বায়ুসেনা। খতিয়ে দেখা হচ্ছে বিমানবন্দরের রানওয়ে, ট্যাক্সিওয়ে, এবং অন্যান্য ব্যবস্থা। এর আগে একবার অসামরিক বিমান বন্দরে প্রয়োজনে ব্যবহার করা হয়নি বলে সূত্রের দাবি।

 

এর আগে অসামরিক বিমান বন্দর থেকে সামরিক বিমান মহড়া দিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা। এমনকি জাতীয় সড়ক থেকে যাতে সহজে যুদ্ধ বিমান ওঠানামা করানো যায় এমন পরিস্থিতি তৈরি করে রাখা হয়েছে। রাফাল যুদ্ধবিমান আসার পর দ্রুত কি করে তা লাদাখ সীমান্তে নিয়ে যাওয়া যায় তারও ব্লুপ্রিন্ট সেরে রেখেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। এই পরিস্থিতিতে ফের হক ফাইটার জেটের মহড়া সেই জল্পনাকেই আবার উসকে দিল।

 

Related Articles

Back to top button
Close