fbpx
হেডলাইন

স্বাস্থ্য আধিকারিক হেনস্থার অভিযোগ আবাাসনের বিরুদ্ধে, তদন্তে পুলিশ

মিলন পণ্ডা, হলদিয়া (পূর্ব মেদিনীপুর):  এক স্বাস্থ্য আধিকারিক ও পরিবারের সদস্যদের হেনস্থা অভিযোগ উঠলো এক আবাসনের বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যেই হলদিয়ার ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক দিব্যজ্যোতি বসু থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। হেনস্থা কথা পুরোপুরি অস্বীকার করেছে আবাসন কতৃপক্ষ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূএে জানা গিয়েছে প্রায় পাঁচ বছর ধরে হলদিয়া টাউনশিপের একটি আবাসনে ভাড়া রয়েছে ওই চিকিৎসক। দেশজুড়ে লকডাউন চলায় আবাসনের পক্ষ থেকে বেশকিছু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।বাইরের কোনও ব্যক্তি বা আত্মীয়কে বর্তমানে প্রবেশের ক্ষেএে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আবাসনের থাকা ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক দিব্যজ্যোতিবাবু ও তার পরিবারের সদস্যদের হেনস্থা করেছে। তিনি অভিযোগে শুধু ডাক্তার এবং করোনা পজ়িটিভদের এলাকায় যাচ্ছেন বলেই তাঁর পরিবারের প্রতি আবাসনের অন্যান্য আবাসিকরা হেনস্থা করছেন।

ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারীক দিব্যজ্যোতি বসু বলেন দেশে কোরোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই চিকিৎসক হওয়ার অপরাধে আমাকে আবাসন থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য সবাই চাপ দিচ্ছেন। আমি সরে যেতে রাজি হচ্ছি না বলে আমার পরিবারকে আমার বর্তমানে হেনস্থা করা হচ্ছে। এটা খুব অপমান জনক।আমি এখানেই শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করতে চাই।

আবাসনের সভাপতি সৌম্যকান্তি প্রধান বলেন চিকিৎসক যে অভিযোগ করছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। ওঁর ব্যক্তিগত আচরণের কারণে আমরা সবাই অসন্তুষ্ট।তাই সমস্ত আবসিকরা মিলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আবাসনের মালিকের কাছে নালিশ করে এখান থেকে ওঁকে সরিয়ে দিতে।

হলদিয়া মহাকুমা পুলিশ আধিকারিক তন্ময় মুখার্জি বলেন চিকিৎসক একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন৷ অভিযোগে ভিওিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close