fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শয্যাশায়ী অসুস্থ রোগীর বাড়ি গিয়ে সোয়াব পরীক্ষা স্বাস্থ্যকর্মীর, মানবিকতার নজির আসানসোলে

শুভেন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়, আসানসোল: বিছানায় শুয়ে থাকা অসুস্থ ও অর্থব রোগীর বাড়িতে গিয়েই সোয়াব টেস্ট করলেন স্বাস্থ্যকর্মী। মানবিকতার অনন্য নজিরের এক ছবি দেখা গেল আসানসোলের সালানপুরের রূপনারায়ণপুরে।ব্লক স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গেছে, রূপনারায়ণপুর পুলিশ ফাঁড়ি সংলগ্ন এলাকায় তিনজন করোনা আক্রান্ত হোম কোয়ারান্টাইন আছেন। করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ওই এলাকার দাস পরিবারের সদস্যরা। সেই পরিবারের অন্য সদস্যরা হাসপাতালে গিয়ে করোনা পরীক্ষা করিয়ে এসেছেন৷ কিন্তু বিশ্বনাথ দাস শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বিছানায় শয্যাশায়ী হয়ে আছেন।

জানা গেছে, তার মেরুদন্ডের অস্ত্রোপচার হয়েছে। এছাড়াও তার পায়েও চোট আছে। এই অবস্থায় বিশ্বনাথবাবুর পক্ষে হাসপাতালে যাওয়া একপ্রকার অসম্ভব। আবার এই পরিস্থিতিতে তার করোনা হয়েছে কিনা তা জানার জন্য সোয়াব পরীক্ষা করানোটাও যথেষ্ট জরুরি। তেমন গাড়ির ব্যবস্থা করতে না পারায় বিশ্বনাথবাবুকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াও সম্ভব হচ্ছিল না।

এমন একটা পরিস্থিতির গুরুত্ব বিবেচনা করে বৃষ্টি মাথায় নিয়েই সালানপুর ব্লকের পিঠাইকেয়ারি হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মী স্বপন দাস নিজেই এগিয়ে আসেন। তিনি নিজেই পিপিই পরে ১০২ কোভিড অ্যাম্বুলেন্সে বিশ্বনাথবাবুর বাড়িতে হাজির হয়ে যান। ঝুঁকি নিয়েও ওই স্বাস্থ্য কর্মী ঘরে ঢুকে বিশ্বনাথবাবুর লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে Rapid অ্যান্টিজেন পদ্ধতিতে করোনা সংক্রমণ হয়েছে কি তা পরীক্ষা করেন।
স্বাস্থ্যকর্মীর এই মানবিক মুখ ও তার এগিয়ে আসায় সাধুবাদ জানিয়েছেন রূপনারায়ণপুরের বাসিন্দা সহ ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ও অন্য স্বাস্থ্য কর্মীরা।

স্বাস্থ্য কর্মী স্বপন দাস বলেন, স্বাস্থ্যকর্মী হিসাবে আমাদের যা দায়িত্ব আমি সেটাই করছি। ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ সুব্রত শিট ও অমরেশ মাজিরা আমাদের সাহায্য করে যাচ্ছেন বলে আমরা সালানপুরে স্বাভাবিক স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে পারছি। তিনি আরও বলেন, স্বস্তির কথা এটাই এই বিশ্বনাথবাবু করোনা আক্রান্ত নন। তার রিপোর্ট নেগেটিভ।

Related Articles

Back to top button
Close