fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

স্বাস্থ্যকর্মীর করোনা পজিটিভ ধরা পড়তেই এলাকা স্যানিটাইজ করলেন পুরসভার কর্মীরা

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে স্বাস্থ্যকর্মী করোনা পজিটিভ ধরা পড়তেই সংশ্লিষ্ট এলাকা স্যানিটাইজ করল পুরসভার কর্মীরা। দিনহাটা শহরে এই প্রথম কোন মানুষের শরীরে এই করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। একজনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়তেই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যাতেই জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরের চার নম্বর ওয়ার্ডের সংশ্লিষ্ট এলাকা কনটেনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষণা করা হয়। এই রোগের হাত থেকে এলাকার মানুষকে রক্ষা করতে  শুক্রবার সকালে পুরসভার পক্ষ থেকে বাপি গোস্বামী, বাপি রায় প্রমুখ পুরসভার কর্মীরা ওই এলাকায় কনটেন্টমেন্ট  জোনের বোর্ড লাগিয়ে দেয়।

কোনভাবেই এতে ওই এলাকায় কোন মানুষ প্রবেশ না করে তার জন্য আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও তুলে ধরা হয় ওই বোর্ডে। এলাকার এক স্বাস্থকর্মীর করোনা পজিটিভ ধরা পড়তেই  কনটেনমেন্ট জোন  হিসাবে  ঘোষণার পরই এদিন ওই এলাকা স্যানিটাইজের পাশাপাশি এলাকার বাসিন্দাদের  পুরসভার পক্ষ থেকে মাইক দিয়ে প্রচার করে নানাভাবে সচেতন করে দেওয়া হয়।  পুর কর্তৃপক্ষের এদিন গোটা এলাকাকে তড়িঘড়ি স্যানিটাইজ করায় খুশি স্থানীয় বাসিন্দারাও। পুরো কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি এদিন যুব  তৃণমূলের পক্ষ থেকেও  শহর ব্লক সভাপতি অজয় রায়, ধনঞ্জয় দেবনাথ প্রমুখ  ওই এলাকায় গিয়ে আক্রান্ত বাড়ির অন্যান্যদের সঙ্গে কথা বলেন। এবং তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন। এছাড়াও স্থানীয় এলাকার বাসিন্দাদের কেউ তারা নানাভাবে সচেতন করেন।

পুরসভার কর্মী বাপি গোস্বামী বলেন,  জেলাশাসকের নির্দেশ অনুযায়ী এই এলাকাকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করায় এদিন তারা স্যানিটাইজ করেন আশপাশের এলাকাকে।
এদিকে যুব তৃণমূল শহর ব্লক সভাপতি অজয় রায় বলেন, দিনহাটা হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মী কঠিন এই  রোগ মোকাবিলায় পরিষেবা দিতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন। যুব তৃণমূল কর্মীরা তাদের পাশে থাকার পাশাপাশি এই রোগ প্রতিরোধে মানুষ কেউ নানাভাবে সচেতন করে চলছেন।

এদিকে দিনহাটা পুরসভার প্রশাসক  বিধায়ক উদয়ন  গুহ বলেন, শহরের চার নম্বর  ওয়ার্ডের এক স্বাস্থকর্মী এই রোগে আক্রান্ত হয় ওই এলাকাকে  কনটেনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষণা করেছে প্রশাসন। সেখানে পুরসভার কর্মীরা গোটা এলাকাকে স্যানিটাইজ করার পাশাপাশি বাসিন্দাদের কেউ সচেতন করা হয়।

Related Articles

Back to top button
Close