fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় ভারী বর্ষণের আশঙ্কা…জারি হলুদ সতর্কতা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সোমবার রাত থেকে বৃষ্টি শুরু হয়েছে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জায়গায়। জানা গিয়েছে, উত্তর বঙ্গোপসাগরে একটি গভীর নিম্নচাপের সৃষ্টি হয়েছে। আর যার জেরে মঙ্গল ও বুধবার জুড়ে দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই হাল্কা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এমনটাই জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। মঙ্গলবার দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায় ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে আবহাওয়া দফতরের তরফ থেকে। সোমবার রাতে কোনও কোনও জায়গায় ভারী বৃষ্টি হয়। পাশাপাশি মঙ্গলবার সকাল থেকেও বৃষ্টি চলছে।

ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সতর্কতায় দক্ষিণবঙ্গে হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বলা হয়েছে অতিবৃষ্টির জেরে কলকাতা ও সন্নিহিত এলাকায় জল জমে যেতে পারে। আগামী ৪৮ ঘন্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে উত্তরবঙ্গের হিমালয় সংলগ্ন ৫ জেলা, দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারে। এছাড়াও উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর ও মালদহে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

আগামী ৪৮ ঘন্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার নদিয়া, বীরভূম, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলিতে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়াও গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের অন্য জেলাগুলির কোনও কোনও জায়গায় ভারী বৃষ্টি হতে পারে বলে জানানো হয়েছে। বুধবারের জন্য সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, পশ্চিম বর্ধমানের কোনও কোনও জায়গায় ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

অন্যদিকে মৎস্যজীবীদের প্রতি সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, মঙ্গল ও বুধবার সমুদ্রে মাছ ধরতে না যেতে। আর যাঁরা ইতি মধ্যেই গভীর সমুদ্রে চলে গিয়েছেন, তাঁদের মঙ্গলবার সকালের মধ্যে ফিরে আসতে বলা হয়েছে। অন্যদিকে প্রবল বৃষ্টিতে ভাসছে বাণিজ্য নগরী মুম্বই। তিনদিন ধরে একনাগাড়ে বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত মুম্বই ও তার সংলগ্ন এলাকা। জলমগ্ন রেললাইন, বিমানবন্দরে ব্যাহত উড়ান পরিষেবা। রাস্তায় কোমর জলে ছাতা মাথায় মানুষের লম্বা লাইন, যান চলাচলও বিপর্যস্ত। বাণিজ্যনগরীর কোনও কোনও এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হচ্ছে মুম্বইয়ে। বাণিজ্যনগরী ছাড়াও পুণে, ঠাণে, রায়গড় ও রত্নগিরিতে জারি হয়েছে লাল সতর্কতা। তবে এখনই এই পরিস্থিতি থেকে রেহাই মিলবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। বুধবারও সেখানে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

সেই সঙ্গে বলা হয়েছে, এ দিন দুপুর ১২টা ৪৭ মিনিট নাগাদ উপকূলবর্তী এলাকায় ৪.৫১ মিটার উচ্চতায় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে। সমুদ্র সৈকত ও তার আশপাশে মানুষজনকে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। মত্‍স্যজীবীদের সমুদ্রে যেতেও মানা করা করা হয়েছে। টানা বৃ্ষ্টিতে জল জমতে শুরু করেছে শহরের নীচু এলাকাগুলিতে। রাত থেকেই যান চলাচলে সমস্যা শুরু হয়। রাত বাড়লে বাড়তে থাকে বৃষ্টির দমক। ফলে এদিন সকাল থেকেই রেল ও বিমান পরিষেবা বিপর্যস্ত হয়। ট্র্যাকে জল জমে যাওয়ার কারণে বেশ কিছু ট্রেন বাতিল হয় সেন্ট্রাল মুম্বইয়ে। একই হাল দক্ষিণ মুম্বইয়েরও।

Related Articles

Back to top button
Close