fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়কের মৃত্যু মামলায় চার্জশিট পেশ CID’র

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: রাজ্যে এখন প্রত্যেকদিনই কোথাও না কোথাও খুন হচ্ছেন বিজেপি কর্মীরা। কিন্তু তার মধ্যে সবচেয়ে আগে শোরগোল ফেলে দিয়েছিল বাড়ির অদূরে চায়ের দোকানে ঝুলন্ত দক্ষিণ দিনাজপুরের হেমতাবাদে বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের দেহ। ওই ঘটনাকে পরিকল্পিত খুন বলে প্রথম থেকেই দাবি করে এসেছে বিধায়কের পরিবার এবং বিজেপিও। ঘটনার ঠিক ২ মাসের মাথায় এই মামলার চার্জশিট পেশ করলেন সিআইডি অফিসাররা।

সিআইডি সূত্রে খবর, ধৃত দুজন নিলয় সিনহা ও মেহেবুব আলির বিরুদ্ধে আইপিসি ৩০৬, ৪২০ ও ১২০বি ধারায় মামলা রুজু হয়েছিল। এদিন চার্জশিট দিয়ে ধৃতদের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া ও প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, রাজ্যে একাধিক বিজেপি কর্মী আগে খুন হলেও বিজেপি বিধায়কের এই খুনের ঘটনা রীতিমতো শোরগোল ফেলে দিয়েছিল। গত ১৩ জুলাই ভোর বেলা রায়গঞ্জ থানার বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতের বালিয়াদিঘী গ্রামে বাড়ির কাছেই এক বন্ধ দোকানের বারান্দা থেকে উদ্ধার হয়
হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের ঝুলন্ত মৃতদেহ। বিধায়কের মৃত্যুর খবর শুনেই তাকে দেখতে কয়েক হাজার মানুষ ছুটে আসেন এলাকার মৃতদেহ উদ্ধার করতে গেলে রীতিমতো বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় পুলিশকে। বিধায়কের স্ত্রী চাদিমা রায় বলেন, ‘আমার স্বামীকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে। যারা খুন করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি আমরা জানাচ্ছি।’

ঘটনার তদন্তে প্রথমে স্থানীয় থানার পুলিশ তদন্তে নামে। মৃত বিধায়কের পকেট থেকে উদ্ধার হওয়া সুইসাইড নোটের ভিত্তিতে অভিযুক্ত ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। পরে মামলার তদন্তভার হাতে নিয়ে ধৃতদের জেরা শুরু করে সিআইডি। সিআইডি গোয়েন্দাদের দাবি, জেরার মুখে অভিযুক্তরা বলেছে, তাদের থেকে মোটা টাকা ধার করেও দেবেন্দ্রনাথ শোধ করছিলেন না। সেই কারনেই তারা হুমকি দিয়েছিলেন বিধায়ককে। এরপরেই আত্মহত্যার করেন বিধায়ক। যদিও বিজেপির দাবি, ওই এলাকায় দেবেন্দ্রনাথবাবুর হাত ধরে বিজেপির প্রভাব বাড়তে থাকায় পরিকল্পিত ভাবে খুন করে আত্মহত্যার ঘটনা সাজানো হয়েছে। এর বিরুদ্ধে রাজনৈতিক আন্দোলন জারি থাকবে।

Related Articles

Back to top button
Close