fbpx
কলকাতাহেডলাইন

কেএমসিতে প্রশাসক বোর্ডকে কেয়ারটেকার হিসাবে মান্যতা, হাইকোর্টের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা সুপ্রিম কোর্টে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কলকাতা পৌর নিগমে প্রশাসক বোর্ডকে ‘কেয়ারটেকার বোর্ড’ হিসেবে চিহ্নিত করে জরুরী কাজের অনুমতি দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চ। সেই সিদ্ধান্তকে মান্যতা দিল হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চও। এবার হাইকোর্টের সেই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা দায়ের হল সুপ্রিম কোর্টে। আগামী শুক্রবার এই মামলার শুনানির সম্ভাবনা রয়েছে।

 

 

প্রসঙ্গত, কলকাতা পৌর নিগমে রাজ্যের গঠিত প্রশাসক বোর্ডকে ‘কেয়ারটেকার বোর্ড’ হিসেবে চিহ্নিত করে তাদের এক মাসের জন্য কাজ করার সুযোগ দিয়েছিলেন বিচারপতি সুব্রত তালুকদার। পরে এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে মামলা এলে বোর্ডের মেয়াদ বাড়িয়ে আগামী ২০ জুলাই পর্যন্ত বাড়িয়ে কাজ করার অনুমতি দেন হাইকোর্টের বিচারপতি ইন্দ্র প্রসন্ন মুখোপাধ্যায় ও বিচারপতি তীর্থঙ্কর ঘোষের ডিভিশন বেঞ্চ।

 

কিন্তু অর্ডিন্যান্স করে এই সিদ্ধান্ত নিলে ভালো হত, পর্যবেক্ষণ ছিল হাইকোর্টের ছিল ডিভিশন বেঞ্চের। এই যুক্তি খাড়া করে এবার দেশের সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারস্থ মামলাকারি কলকাতার অরবিন্দু সরণির বাসিন্দা শরৎ কুমার সিং।
তার আইনজীবী বিকাশ সিংয়ের দাবি, সম্পূর্ণ আইন বিরুদ্ধ ভাবে এই বোর্ড গঠন হয়েছে। 6 মে রাজ্যের যে দফতরর থেকে এই বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে সেই দফতরেরই নিযুক্ত প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। একজন পৌর মন্ত্রী কিভাবে নিজেকেই নিজে পৌরনিগমের প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ করতে পারে ?

 

 

তাছাড়াও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে করোণা মহামারির জন্য এই পরিস্থিতিতে পুরভোট স্থগিত হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে ফিরহাদ হাকিমকেই প্রশাসক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। রাজ্য কথাও উল্লেখ করেনি যে শুধুমাত্র করোনা পরিস্থিতি চলাকালীন এই বোর্ড থাকবে, নাকি আগামী নির্বাচন পর্যন্ত থাকবে ! রাজ্য নির্বাচন কমিশনও এটাকে সমর্থন করেছে যা অসাংবিধানিক। অন্যান্য পুরসভায় প্রশাসক বসানো গেলেও কলকাতা পৌরনিগমের ক্ষেত্রে তা আইন বিরুদ্ধ। যথাযথ নিয়ম মেনে তা করা হয়নি।

Related Articles

Back to top button
Close