fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

মানবিকতা ধর্মের উর্দ্ধে, লকডাউনে আটকে বাবা-মা, হিন্দু মেয়ের কন্যাদান করলেন মুসলিম দম্পতি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: মানবিকতা যে ধর্মের উর্দ্ধে, তার প্রমান ফের পাওয়া গেল। লকডাউনে অন্য জায়গায় আটকে আছেন বাবা-মা, হিন্দু মেয়ের কন্যাদান করলেন মুসলিম দম্পতি। মানবতা যে ধর্মের ঊর্ধ্বে, তা প্রমাণ করলেন লুধিয়ানার ওই দম্পতি।

করোনা পরিস্থিতির বহু আগে পূজার সঙ্গে সুদেশ কুমারের বিয়ে ঠিক হয়। তখনই ঠিক ছিল যে, ২ জুন এই দুইজনের সামাজিক মতে বিয়ের হবে। কিন্তু কনের বাবা-মার উত্তরপ্রদেশ মোরাদাবাদে তাদের আদি বাড়িতেই থেকে যায়। শুধু কনে অর্থাৎ ওই দম্পতির কন্যাসন্তান পূজা থেকে গিয়েছিলেন লুধিয়ানায়।

এরমধ্যেই লকডাউন হয়ে গেলে বিয়েতে সমস্যায় পড়ে ওই দম্পতি। লকডাউনের মধ্যে কোনওমতেই লুধিয়ানায় আসা সম্ভব ছিলনা তাদের ।

শেষে ঠিক হয় যে লুধিয়ানায় প্রতিবেশী এক মামা-মামী দাঁড়িয়ে থেকে মেয়ের বিয়ে দেবে। কিন্তু ওই প্ৰতিবেশী মুসলিম হওয়ায় চিন্তায় পড়েন কনের বাবা- মা। মুসলিম প্রতিবেশীর তত্ত্বাবধানে হিন্দু মেয়ের বিয়ে মেনে নেবেন কিনা পাত্র পক্ষ। সেইনিয়ে চিন্তার ভাঁজ পড়ে তাদের কপালে।

কিন্তু পাত্র সুদেশের পরিবার সেই প্রস্তাব মেনে নেয়। সেই অনুযায়ী মুসলিম প্রতিবেশীর তত্ত্বাবধানে হিন্দু রীতি মেনে পূজা এবং সুদেশের চারহাত এক হয়। নবদম্পতিকে নানা উপহারও দেন ওই প্রতিবেশী দম্পতি।

করোনা সংক্রমণের আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন মাত্র সাতজন।

কনের প্রতিবেশী আবদুল সাজিদ এবং তাঁর স্ত্রী বলেন, “আমরা প্রায় ৫ বছর ধরে পূজার পরিবারকে চিনি। পূজারা আমাদের মামা-মামী বলেই ডাকে। পূজা আমাদের মেয়ের মতো। আমরা পূজার কন্যাদান করি। তাই দাঁড়িয়ে থেকে ওর বিয়ে দিতে পেরে খুব ভাল লাগছে।”

Related Articles

Back to top button
Close