fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

উত্তপ্ত হেমতাবাদ থেকেও কৃতী, শিক্ষিকা হতে চায় জ্যোৎস্না

মৃন্ময় বসাক, হেমতাবাদঃ সম্প্রতি রাজ্যের রাজনৈতিক মানচিত্র এবং খবরের দুনিয়ায় যথেষ্ট বিতর্ক তৈরি করেছে হেমতাবাদ । এবার সেই হেমতাবাদ থেকেেই উচ্চমাধ্যমিকে ফলাফলে বেরিয়ে়ে এলো কৃতীদের নাম। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ৪৯০ নম্বর পেয়ে শিক্ষিকা হতে চায় হেমতাবাদের বাঙ্গালবাড়ি হাই স্কুলের কলা বিভাগের ছাত্রী জোৎস্না বর্মন। বাঙ্গালবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের দধিকোটবাড়ি এলাকার বাদিন্দা জোসনা বর্মন এইবছর উচ্চ মাধ্যমিকে বাংলায় ৯৫, ইংলিশে ৯৫, ভূগোলে ১০০, ইতিহাসে ১০০, এডুকেশনে ১০০ নম্বর পেয়েছে। আগামীতে ইংরাজি নিয়ে পড়াশোনা করে শিক্ষিকা হতেচায় জোসনা।

শনিবার দুপুরে বাঙ্গালবাড়ি স্কুলে জোসনাকে ফুলের তোড়া ও মিষ্টির প্যাকেট দিয়ে সংবর্ধনা জানান বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। পাশাপাশি মাধ্যমিকে ৬৬১ নম্বর পেয়ে বিদ্যালয়ের মধ্যে প্রথম সামিম আকতারকেও সংবর্ধনা জানানো হয় এদিন।
কৃতি ছাত্রী জোস্না বর্মন জানান, এই সাফল্যে খুশি সে। তবে কলেজে পরতে ও উচ্চ শিক্ষার জন্য অর্থের প্রয়োজন। স্কলশিপ পেলে তার লেখাপড়ার খরচ চালাতে সুবিধা হবে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নারায়ন চন্দ্র দত্ত জানান, দারিদ্রতার সাথে লড়াই করে জোসনা উচ্চ মাধ্যমিকে ৪৯০ নম্বর পেয়েছে। পঞ্চাম শ্রেণী থেকেই সে বাঙ্গালবাড়ি হাই স্কুলেই পরত। মাধ্যমিকেও ভালো ফলাফল করেছিল জোসনা।উচ্চ শিক্ষার জন্য জোসনার কোনো সহযোগিতা লাগলে তা করা হবে বলে জানিয়েছেন নারায়ন বাবু।
হেমতাবাদ ব্লকের বিডিও পৃথ্বীস দাস বলেন, জোসনা বর্মননের সাফলে খুশি হয়েছি। তার আর্থিক সমস্যার কথা আমার জানা আছে। তবে তার উচ্চ শিক্ষার জন্য অর্থের সমস্যা হবে না। আমি নিজে গিয়ে জোসনার সাথে দেখা করে ও তার পরিবারের সাথে কথা বলে প্রয়োজন অনুযায়ী সরকারি স্কলশিপের ব্যবস্থা করব। শুধু জোসনাই না হেমতাবাদ ব্লকের কোনো ছাত্রছাত্রীর যদি অর্থের জন্য লেখাপড়ায় সমস্যা হয় তারা যেন বিডিও অফিসে এসে যোগাযোগ করে।

Related Articles

Back to top button
Close