fbpx
কলকাতাহেডলাইন

সাম্প্রদায়িক রং দিয়ে অশান্তির চেষ্টা’, শিখ কর্মীর গ্রেফতারি ও পাগড়ি বিতর্কে বিজেপির বিরুদ্ধে পালটা ট্যুইট স্বরাষ্ট্র দফতরের

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: নবান্ন অভিযানে জলকামানের রং ব্যবহার বিতর্ককে ছাপিয়ে শনিবার থেকেই রাজ্যে আরও বেশি বিতর্কের জন্ম দিয়েছে বলবিন্দর সিং নামে এক শিখ বিজেপি কর্মীর থেকে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারের ঘটনার পর তার পাগড়ি খুলে নেওয়ার ঘটনা। পুলিশ ওই পাগড়ি খুলে দিয়েছে বলে বিজেপি দাবি করলেও এরকম কোনও প্রত্যক্ষ প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে দাবি রাজ্য প্রশাসনের। তবে এই নিয়ে বিতর্ক ধামাচাপা দিতে রবিবার পরপর তিনটি টুইট করল রাজ্য স্বরাষ্ট্র দফতর। যেখানে দাবি করা হয়েছে, ‘ওই ঘটনাকে সাম্প্রদায়িক রং দিয়ে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে অশান্তির চেষ্টা করছে একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দল।’

প্রসঙ্গত, সব রাজ্যেই রাজনৈতিক প্রতিবাদ হয় কিন্তু রাজনৈতিক প্রতিবাদের মধ্যে এভাবে বলবিন্দর সিংয়ের পাগড়ি খুলে দেওয়া নিয়ে শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছিল বিতর্ক। বিষয়টি নিয়ে রাজনীতির ময়দানে নেমে পড়েন বিজেপির শীর্ষস্তরের একাধিক নেতৃত্ব। দেশজুড়ে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে এবং ভাইরাল হয়ে যায়। প্রতিবাদ জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হন ক্রিকেটার হরভজন সিং।  এমনকি ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংও। আর এর ফলে রীতিমতো চাপে পড়ে গিয়েছিল রাজ্য প্রশাসন।

[আরও পড়ুন- স্পা’য়ের ভেতর রমরমিয়ে মধুচক্র, টেলি অভিনেতা সহ STF’র জালে ১৬]

তবে ঘটনাটি সামাল দিতে রবিবার আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতেই ট্যুইট করল স্বরাষ্ট্র দফতর। স্বরাষ্ট্র দফতরের তরফে এদিন ট্যুইট করে জানানো হয়েছে,  সাধারণ ঘটনাকে সাম্প্রদায়িকতার রং দিয়ে একটা নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দল উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে রাজ্যের শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করছে।এ রাজ্যে শিখ ভাইবোনেরা খুব শান্তিতেই বসবাস করেন। সেদিন বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র-সহ এক শিখের গ্রেফতারির ঘটনাকে এখন অন্যভাবে দেখা হচ্ছে। একটা নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দল সংকীর্ণতা দেখিয়ে রাজ্যের শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করছে। কিন্তু রাজ্যবাসী মোটেই এসবে অভ্যস্ত নয়। তাই তাঁরা নিজেদের মতো করে শান্তি বজায় রাখবেন। শিখ ভাইবোনদের প্রতি আমাদের সরকারের সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা, সম্মান আছে।’

অন্যদিকে, দিল্লির শিখ গুরুদুয়ারা ম্যানেজমেন্ট কমিটির  প্রেসিডেন্ট এমসিরসা মণিদার সিং সিরসার নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য প্রশাসনের বিরুদ্ধে শিখের দস্তর (হেডগিয়ার) কে অসম্মান করার একটি প্রতিবাদপত্র জমা দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের কাছে। তিনি জানিয়েছেন, এই ঘটনা পুরো শিখ সম্প্রদায়ের জন্য গুরুতর অবমাননাকর। একই সঙ্গে বলবিন্দর সিংয়ের জন্য বিচার দাবি করেছেন তিনি।

 

Related Articles

Back to top button
Close