fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চিকিৎসার সঙ্গে সচেতনতার বার্তা দিচ্ছেন হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক ডাঃ শুক্লা মল্লিক

বাপ্পা রায়, ময়নাগুড়ি : মানুষকে চিকিৎসার পাশাপাশি সচেতনতার বার্তা দিয়ে মানবিকতার পরিচয় দিলেন ময়নাগুড়ি ব্লকের খাগড়াবাড়ি ২নং গ্রাম পঞ্চায়েতের হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক ডাঃ শুক্লা মল্লিক ।

 

তিনি ১৫ বছর আগে তিনি জেলা পরিষদের অধীনে স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের দ্বারা হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক হিসাবে নিয়োগ হন। তখন থেকে নিয়মিত পঞ্চায়েত কার্যালয়ের একটি কক্ষে বসে রোগী দেখে চলেছেন । এই কঠিন পরিস্থিতিতেও নিজের জীবনকে বাজি রেখে সমস্ত বাধা অতিক্রম করে পরিষেবা দিয়ে চলেছেন তিনি। তাঁর এই নিরলস পরিশ্রম এবং কাজের প্রতি দায়বদ্ধতার জন্য প্রশংসা করেছেন খাগড়াবাড়ি ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান বাবলু রায় সহ গ্রাম পঞ্চায়েতের সাধারণ মানুষজন।

 

 

হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার সঙ্গে মানুষকে করোনা নিয়ে সচেতন করতে তিনি সচেতনতার বার্তা দিয়ে চলেছেন। এর পাশাপাশি জ্বর , সর্দি , কাশি সহ বিভিন্ন উপসর্গ থেকে করোনার গুজব ও আতঙ্ক রুখতে রোগীদের আর্সেনিক এলবাম দিচ্ছেন শুক্লাদেবী । তিনি জানান , হোমিওপ্যাথি ওষুধ আর্সেনিক এলবাম প্রমাণিত করোনার প্রতিষেধক নয় । তবে করোনার উপসর্গ জ্বর , সর্দি , কাশি , বমিভাব প্রভৃতির প্রতিষেধক । তাই করোনার এই কঠিন সময়ে যাতে এলাকার মানুষজন সর্দি , কাশি , জ্বর থেকে রক্ষা পান এবং করোনার গুজব ও আতঙ্ক এলাকায় না ছড়ায় তার জন্য তিনি রোগীদের আর্সেনিক এলবাম সেবনের পরামর্শ দিচ্ছেন ।

 

শুক্লাদেবী আরও জানান , চিকিৎসকের পরামর্শে প্রতিমাসে আর্সেনিক এলবাম এর দুফোটা ওষুধ সেবন করলে সর্দি ,কাশি , জ্বর সহ করোনার নানা উপসর্গ থেকে রেহাই পাওয়া যাবে । শুক্লাদেবী আগে প্রতিদিন প্রায় গড়ে শতাধিক রোগী দেখতেন বলে জানান । কিন্তু লকডাউনের মুহূর্তে এখন প্রতিদিন গড়ে ৫০ থেকে ৬০ জন রোগী দেখছেন । সামাজিক দূরত্ব মেনে স্যানিটাইজার করে তিনি নিয়মিত রোগী দেখছেন । এছাড়া তার কাছে আসা প্রত্যেক রোগীকে করোনা নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন ভাবে চলার পরামর্শ দেন।

খাগড়াবাড়ি ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান বাবলু রায় বলেন, ” আমি বহুদিন থেকে ওনাকে দেখছি এখানে কাজ করছেন। নিজের কাজ এবং সমাজের প্রতি দায়িত্বশীলতা প্রশংসার দাবি রাখে।”

Related Articles

Back to top button
Close