fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ঘরবন্দি সাংসদ মিমি, ভাঙড়ে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছচ্ছেন মিমির প্রতিনিধিরা

ফিরোজ আহমেদ, ভাঙড়: লকডাউনে ঘরবন্দি তথা হোম কোয়ারেন্টাইনে যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ তথা অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। ঘরবন্দি থাকলেও অসহায় নিরন্ন মানুষের জন্য প্রাণটা কেঁদে চলেছে তার, সাংসদ মিমি তার লোকসভা কেন্দ্রের সাতটি বিধানসভা এলাকার কোথায় কতজন মানুষ অসহায় নিরন্ন হয়ে আছেন। কিভাবে তাদের হাতে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছনো যাবে তা নিয়ে তিনি প্রতিনিয়ত চিন্তাভাবনা করছেন এবং তাদের হাতে ঠিকমতো খাদ্য সামগ্রী পৌঁছাচ্ছে কিনা তা বাড়িতে বসেই তদারকি করছেন মুখ্যমন্ত্রীর আস্থাভাজন সাংসদ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী।

যাদবপুর থেকে ভাঙ্গড় প্রতিনিয়ত অসহায় মানুষের হাতে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন মিমির প্রতিনিধিরা। বৃহস্পতিবার সেই মতন ভাঙড়ের খড়ম্বা বারোয়ারি তলায় প্রায় ৩০০ মানুষের হাতে সংসদ মিমির নির্দেশে খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন সাংসদ প্রতিনিধি তথা মিমির আপ্তসহায়ক অনির্বাণ ভট্টাচার্য এবং ভাঙ্গড়ের যুবনেতা অহিদআলি শেখ।

এই অনুষ্ঠানে নারায়নপুর পঞ্চায়েতের উপপ্রধান সিরাজুল ইসলাম, ব্যাওতা ১ অঞ্চলের তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি বিমল নস্কর সহ স্থানীয় পঞ্চায়েত মেম্বার উপস্থিত ছিলেন। এদিন খাদ্য সামগ্রী নেওয়ার জন্য গ্রামের অসহায় দুঃস্থ মানুষজন হাতে ব্যাগ নিয়ে উপস্থিত ছিলেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে একে একে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এ বিষয়ে অহিদআলি শেখ জানান, আমার কোনও বোন নেই কিন্তু মিমি যখন যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী হিসাবে দাঁড়িয়ে ছিল তখন থেকে আমি মিমি কে ছোট বোনের মতন করে দেখি। তিনি যা বলেন, আমি অক্ষরে অক্ষরে ভাই হিসাবে পালন করি। সেই মতন তাঁর নির্দেশে আমি ভাঙড়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছি।

এ বিষয়ে সাংসদ মিমির আপ্তসহায়ক অনির্বাণ ভট্টাচার্য বলেন, মিমি চক্রবর্তী বিদেশ থেকে ফিরে এসে ঘরবন্দি আছেন। কিন্তু তিনি ঘরবন্দি থাকলেও মানুষের জন্য কাজ করছেন। তার নির্দেশে আমরা ভাঙড় সহ বিভিন্ন জায়গায় অসহায় মানুষের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিচ্ছি।

Related Articles

Back to top button
Close