fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাপের বাড়ি থেকে টাকা না পেয়ে গৃহবধূকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ

মিলন পণ্ডা, পটাশপুর (পূর্ব মেদিনীপুর): বাপের বাড়ি থেকে অতিরিক্ত পনের টাকা না পেয়ে কেরোসিন তেল ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠল স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে। এই নারকীয় অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে অবশেষে থানায় অভিযোগ দায়ের করলেন নির্যাতিতা অগ্নিদগ্ধ স্ত্রী। ঘটনার পর স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির বাকী সদস্যরা এলাকাছাড়া রয়েছে বলে পুলিশের দাবি। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় পটাশপুর থানার রুপাদিঘী গ্রামে।এই ঘটনার পরই গোটা এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে গত সাত বছর আগে ভগবানপুর থানার টোটানালা গ্রামের ময়না ঘোড়াই সঙ্গে পটাশপুরের রুপাদিঘী গ্রামের মানিক ঘোড়াই এর বিয়ে হয়। বিয়ের সময় সোনার গহনা সহ যথেষ্ট দান সামগ্রী দিয়ে বিয়ে দেওয়া হয়েছিল বলে মেয়ের বাপের বাড়ির দাবি। বিবাহ সময় দেওয়া দান সামগ্রী পছন্দ হয়নি বলে গৃহবধূকে প্রায়ই কটুক্তি করত স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা বলে এমনটাই অভিযোগ। এর মাঝেই তাদের পুত্র বও কন্যা সন্তানও হয়।

প্রায়ই পনের দাবিতে গৃহবধূ ময়নার উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করত স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির সদস্যরা বলে স্থানীয় বাসিন্দা থেকে মেয়ের বাপের বাড়ি দাবি। এনিয়ে কয়েকবার দুই পক্ষের মধ্যে গ্রাম্য সালিশি সভাও বসে। কিন্তু তাতেই কোন সমাধান সূত্র বের হয়নি। উল্টে গৃহবধূর অতিরিক্ত পনের দাবিতে অত্যাচারও দিনের পর দিন বাড়তে থাকে।

গত একমাস আগে গৃহবধূকে তার বাপের বাড়ি থেকে নগদ ৬০ হাজার টাকা নিয়ে আসার জন্য চাপ দিতে থাকে স্বামী মানিক সহ পরিবারের সদস্যরা বলে অভিযোগ। সেই টাকা কোন ভাবেই আনতে রাজি হয়নি গৃহবধূ ময়নাদেবী। এরপর গৃহবধূর ওপর শুরু হয় নারকীয় অত্যাচার। এর মাঝে স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির সদস্যরা গৃহবধূকে খুনের পরিকল্পনা করে বসে।

গত ২৮ মে ময়নাকে জোর করে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয় স্বামী বলে অভিযোগ। সেই কাজে পুরো সহযোগিতা করে তার শ্বশুর বাড়ির সদস্যরা এমনটাই অভিযোগ। গৃহবধূর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ও পরিবারের লোকেরা উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করেন। এরপরেই থানার অভিযোগ দায়ের করেন ওই গৃহবধূ।

পটাশপুর থানার ওসি চন্দ্রকান্ত শাসমল বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। স্বামী সহ অভিযুক্তদের ধরতে জোরদার তল্লাশি শুরু করা হয়েছে। ওসি আরও বলেন, অভিযুক্ত এলাকা ছাড়া রয়েছে। খুব শীঘ্রই অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হবে। স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ি তিনজনের বিরুদ্ধে বধূ নির্ষাতন, খুনের চেষ্টা, অতিরিক্ত পণের দাবিতে নির্যাতন সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেছে পটাশপুর থানার পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close