fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পণ না পেয়ে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ স্বামী সহ পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে

মিল্টন পাল, মালদা: পণের টাকা নিয়ে বচসার জের। আর যার জেরে গ্রামে বসলো সালিশি সভা। এরপরে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল স্বামী সহ তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে মালদার পুখুরিয়া থানার মির্জাদপুর গ্রামে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত গৃহবধূর নাম ফুলতারা খাতুন (১৯)। স্বামী শেখ আইয়ুব পেশায় রাজমিস্ত্রি। মৃতার জেঠু কালাম খান জানান, মেয়ের বাবা জামাল খান ভিন রাজ্যের শ্রমিক বর্তমানে কেরলে রয়েছেন। গত ৮ মাস আগে দুই পরিবারের দেখা শোনার মধ্য দিয়ে তাদের বিয়ে হয়। সেখানে সাধ্যমতো যৌতুক দেওয়া হয়। যৌতুকের সমস্ত পাওনা মিটিয়ে দেওয়া হয়। কয়েক মাস কাটতে না কাটতেই ফের এক লক্ষ টাকা দাবি করে মেয়ের পরিবারের কাছে জামাই শেখ আয়ুব। আর সেই টাকা নিয়ে আসতে অস্বীকার করে ফুলতারা খাতুন। আর এই নিয়ে তাঁদের মধ্যে প্রায়ই বচসা চলত। যা নিয়ে গ্রামে সালিশী সভা বসে। সেখানে শেখ আয়ুব টাকা বাকি রাখার মিথ্যা অভিযোগ করে।

 

যদিও পরে সেই সভায় সব কিছু মেনে নিয়ে শেখ আয়ুব ফুলতারা খাতুনকে নিয়ে সংসার শুরু করে। ফের এদিন ওই টাকা নিয়ে তাদের মধ্যে বচসা চরম আকার নেয়। অভিযোগ এরপরই ফুলতারা খাতুনকে শ্বাসরোধ করে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। পাড়া প্রতিবেশীদের কাছ থেকে ঘটনার খবর পেয়ে আমরা মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে যায়। সেখানে দেখতে পায় ঝুলছে।তড়িঘড়ি তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে। গোটা ঘটনা জানিয়ে আমরা স্বামী সহ ছয়জনের বিরুদ্ধে পুখুরিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুখুরিয়া থানার পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close