fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ঘাটালে বন্ধ ১০০ দিনের কাজ

অসীম বেরা, ঘাটাল: করোনার  আবহে ১০০ দিনের কাজে শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্ধ। করোনা আতঙ্কের মাঝে যাতে গ্রামগঞ্জের মানুষদের কোনও আর্থিক সমস্যা না হয় তার জন্য সরকারের তরফ থেকে চালু রাখা হয়েছে ১০০ দিনের কাজ। আর সেই ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর দ্বন্দ্বে বন্ধ হয়ে রইলো প্রায় এক মাস ধরে।

ঘটনায় এলাকাবাসীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম ক্ষোভ। এলাকাবাসীর অভিযোগ শাসক দলের প্রধান ও গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যের মধ্যে মতবিরোধের ফলে বন্ধ হয়ে রয়েছে ১০০ দিনের কাজ। আর এই ১০০ দিন কাজ বন্ধ থাকার ফলে প্রায় ৩০০ শত জব কার্ড গ্রাহক কাজ না পেয়ে ক্ষোভে ফুঁসছে। এমনই ঘটনা পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা ২ নম্বর ব্লকের কুঁয়াপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের পিংলাশ বুথ এলাকার।
জানাযায় তৃণমূল পরিচালিত গ্রাম পঞ্চায়েত চন্দ্রকোনা কুঁয়াপুর গাম পঞ্চায়েত।
এই গ্রাম পঞ্চায়েতের পিংলাশ এলাকার তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য মিন্টু সাঁতারা ও পঞ্চায়েত প্রধান শঙ্কর ঘোষের দ্বন্দ্বে বন্ধ ১০০ দিনের কাজ।আর এই চন্দ্রকোনা ২ নম্বর ব্লক ১০০ দিনের কাজে রাজ্যে দ্বিতীয় স্থান পায়। এলাকাবাসী কনক দোলই ও বুদ্ধদেব চক্রবর্তী বলেন,প্রতিটি গ্রামে ১০০ দিনের কাজ হচ্ছে কিন্তু হঠাৎ করে আমাদের গ্রামে কাজ হতে হতে বন্ধ হয়ে গেল। এখন দেখছি শুধুমাত্র আমাদের বুথে হচ্ছে না কাজ, একে করোনায় ঘরবন্দী হওয়ার ফলে হাতে পয়সা নেই, তার উপরে ১০০ দিনের কাজ বন্ধ আমরা চাই দ্রুত প্রশাসনই হস্তক্ষেপ। পঞ্চায়েত সদস্য মিন্টু সঁতরার অভিযোগ গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান তার নিজের ইচ্ছে মত তার মদতপুষ্ট লোকেদের দিয়ে ১০০ দিনের কাজ করাতে চায়, এমনকি তার বেশকিছু কাজে প্রতিবাদ করার জন্যই আমার বুধ পিংলাশে ১০০ দিনের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।

যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান শঙ্কর ঘোষের দাবি, পিংলাশ বুথের পঞ্চায়েত সদস্যের স্বামী নিজে সুপারভাইজার ছিল, যার জন্যই বেশকিছু এলাকাবাসীর অভিযোগে করার জন্য বিষয়টি নিয়ে সমস্যা দেখা দেয়, তাই কয়েক দিন ১০০ দিনের কাজ বন্ধ ছিল, দ্রুত কাজ শুরু হবে। চন্দ্রকোনা দুই নম্বর ব্লকের বিডিও স্বাশত প্রকাশ লাহিড়ী বলেন”দ্রুত গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান ও পঞ্চায়েত সদস্যকে জানতে চাওয়া হবে কিসের জন্য ১০০ কাজ বন্ধ, প্রয়োজনে, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর এদিকে এলাকাবাসীরা চাইছেন করোনা আতঙ্কের ফলে ঘরবন্দি হওয়াতে দেখা দিয়েছে আর্থিক সংকট, তাই যেকোন উপায়ে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব দূরে সরিয়ে শুরু হোক ১০০ দিনের

Related Articles

Back to top button
Close