fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপি সাংসদ আলুওয়ালিয়ার উদ্যোগে আবারও বাড়ি ফিরল শতাধিক রোগী ও তাঁদের পরিবার

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: মানবিক সাংসদ। ফোন পাওয়া মাত্রই রোগীর পরিবারের দুঃশ্চিন্তা কাটিয়ে বেঙ্গালুরুতে আটকে পড়া শতাধিক পরিবারকে বাড়ি ফেরাল সাংসদ আলুওয়ালিয়া। সোমবার দুর্গাপুর ষ্টেশনে বিশেষ ট্রেনে নামল ওই সব পরিবার। আর ষ্টেশনে নেমে রাজ্যের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে বিজেপি সাংসদের প্রসংশায় পঞ্চমুখ হয়ে পড়লেন চিকিৎসা ফেরত পরিবারগুলি।

প্রসঙ্গত, বিশ্বজুড়ে নোভেল করোনার থাবা। সংক্রামক রুখতে গত ২৪ মার্চ থেকে দেশজুড়ে লকডাউন জারি হয়। বন্ধ হয়ে যায় বাস, ট্রেন ও বিমান পরিষেবা। আর তার জেরে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে রাজ্যের মানুষজন আটকে পড়ে। লকডাউনের প্রায় দুমাস। সম্প্রতি কেন্দ্র সরকার আটকে থাকা মানুষজনদের বাড়ী ফেরানোর জন্য বিভিন্ন রুটে বিশেষ ট্রেন পরিষেবা চালু করে। সোমবার এরকমই দ্বীতিয় বিশেষ ট্রেনটি দাঁড়ায় দুর্গাপুর ষ্টেশনে। বেঙ্গালুরু থেকে আসা শেষ গন্তব্য নিউজলপাইগুড়ি। এদিন ট্রেন থেকে নামতে বিভ্রান্তির মধ্যে পড়ে অনেকে। পুলিশ প্রশাসন সুত্রে জানা গেছে, দক্ষিনবঙ্গের বাঁকুড়া, হুগলি, দুই বর্ধমান,দুই মেদনীপুর, নদীয়া সহ প্রায় ১৫৫ জন দুর্গাপুরে নামেন।

দুর্গাপুর মহকুমাশাসক অনির্বান কোলে জানান, “যাত্রী নামানোর কোন আগাম সুচনা ছিল না। তবুও খবর পেয়ে সমস্ত যাত্রীদের খাবার, স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও সুষ্ঠভাবে বাড়ী পৌঁছানোর ব্যাবস্থা করা হয়েছে।” ট্রেন থেকে নামতেই অনেক যাত্রী সাংসদ আলুওয়ালিয়ার নামে জয়ধ্বনি দিতে থাকে। উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগে দুর্গাপুর ও আসানসোলের কয়েকটি পরিবার সাংসদ আলুওয়ালিয়ার উদ্যোগে বাড়ী ফেরে। তারপর আজকে শতাধিক পরিবার বাড়ী ফেরে। এরকমই এক যাত্রী রাজলক্ষী হাজরা মন্তেশ্বরের বাসিন্দা।

রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে জানান,” গত ১৯ মার্চ চিকিৎসা করাতে গিয়ে গোটা পরিবারই বেঙ্গালুরুতে আটকে পড়ি। প্রায় দুমাস আটকে। চরম উৎকণ্ঠা আর দুঃশ্চিন্তায় দিন কেটেছে।  রাজ্য সরকারের কাছে বহু আবেদন করেছি। কিন্তু একবার ফোন করেও খবর নেয়নি। অথচ সাংসদ আলুওয়ালিয়াকে ফোন করার পর থেকে প্রতিদিন নিয়ম করে খোঁজখবর নিয়েছেন। বাড়ী ফেরার সমস্তরকম ব্যাবস্থা করেছেন। তাই আজ ওনার প্রতি কৃতজ্ঞ।”

আর এক যাত্রী কার্তিক দাস জানান,” আলুওয়ালিয়া স্যারের উদ্যোগে শতাধিক পরিবার বাড়ী ফিরল। আসানসোল থেকে কোচবিহার, হুগলি, বর্ধমান নদীয়া বিভিন্ন এলাকার চিকিৎসা করাতে গিয়ে আটকে পড়া পরিবার আজ বাড়ী ফিরেছে। তাই ওনাকে শতকোটি প্রনাম।”

Related Articles

Back to top button
Close