fbpx
কলকাতাহেডলাইন

আমার একটাই পার্টি, মিউজিক পার্টি: অমিতের সঙ্গে সাক্ষাতের পর বললেন অজয়

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীর বাড়িতে গেলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এদিন “অজয় চক্রবর্তী বললেন এত বড় মাপের মানুষকে আমন্ত্রণ করার সাহস তাঁর নেই। অমিত শাহ নিজে থেকেই তাঁর বাড়িতে এসেছেন, সেকারণে তিনি গর্বিত।”

বিজেপি, টিএমসি সিপিএম কেউ নয়, আমার পার্টির নাম মিউজিক পার্টি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে সাক্ষাতের পর এ কথাই বললেন অজয় চক্রবর্তী। পূর্ব-নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী শুক্রবার দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পুজো দিয়ে অমিত শাহ চলে যান সঙ্গীত শিল্পী পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীর বাড়িতে। তারপর টালিগঞ্জের গলফ ক্লাব রোডে পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীর সঙ্গীত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শ্রুতিনন্দনে যান তিনি। সেখানে শিশুদের গান শোনেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। এদিন অমিত শাহের সঙ্গে পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীর বাড়িতে উপস্থিত ছিলেন বাবুল সুপ্রিয়ো, রাহুল সিনহা, অর্জুন সিং-সহ আরও অনেকে।

পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তী জানিয়েছেন, ‘দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসেছেন, এতে আমার খুবই আনন্দ হচ্ছে। আমি ভাবতেই পারিনি এত বড় নেতা আমার বাড়িতে আসবেন।’

গত সোমবারই মুকুল রায়, অর্জুন সিংরা পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীর বাড়িতে গিয়ে তাঁর সঙ্গে অমিত শাহের সাক্ষাতের বিষয়টি চূড়ান্ত করেন। তারপর থেকেই প্রখ্যাত এই সঙ্গীতজ্ঞের রাজনৈতিক অবস্থান ঘিরে নানা জল্পনা শুরু হয়। পণ্ডিতজি কি তাহলে বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন? এই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। এই জল্পনার মধ্যেই এদিন বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী বললেন, ‘আমার অন্য কোনও পার্টি নেই। আমার পার্টির নাম মিউজিক পার্টি।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কেন আসছেন?‌

আরও পড়ুন: পুরোনো সহকর্মী গ্রেফতার! মুখ খুললেন Times Now’র রাহুল শিবশঙ্কর, কী বললেন তিনি?

উত্তরে পণ্ডিতজি সরাসরি জানিয়ে দেন, ‘‌আমি রাজনীতির মানুষ নই। আমি সঙ্গীত জগতের মানুষ। এখানে কোনও রাজনীতির যোগ নেই। এখানে প্রয়াত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালামও এসেছিলেন। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে আমার অত্যন্ত ভাল সম্পর্ক। জ্যোতি বসুকে নিয়ে আসারও সুযোগ হয়েছিল। বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীকে এখনও আনার সুযোগ হয়নি। তবে, নিশ্চই চেষ্টা করব।’

অজয়বাবুর স্ত্রী,চন্দনা চক্রবর্তী বলেন, ‘এমন মাটির মানুষ দেখিনি, অর্ধেক চপ আর মুরুক্কু খেয়েছেন।’অজয় চক্রবর্তী জানান, অমিত শাহ তাঁকে বলেছেন, ‘দিল্লিতে আসলে আমাদের ঘরে আসবেন’।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close