fbpx
কলকাতাহেডলাইন

একুশের কঠিন লড়াইয়ে দল যে দায়িত্ব দেবে সাধ্যমতো পালন করবো: বৈশাখী

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: বিজেপির রাজ্য কমিটিতে ডাক পাওয়ার চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে যুগশঙ্খকে একান্ত সাক্ষাৎকারে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ দল যেভাবে চাইবে সেইভাবেই কাজ করবো।’ ঘটনা হল গত মঙ্গলবার বিজেপির রাজ্য কমিটির তালিকায় শোভন চট্টোপাধ্যায়ের নাম থাকলেও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম ছিল না। সূত্রের খবর,শোভন এ নিয়ে ঘনিষ্ঠ মহলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। একুশের গুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়ের আগে আর ঝুঁকি নেয়নি গেরুয়া শিবির। রাজ্য কমিটির প্রথম ভার্চুয়াল বৈঠকে যোগ দেওয়ার জন্য শোভন ও বৈশাখী দুজনের কাছেই বুধবারই লিঙ্ক পাঠিয়ে দেওয়া হয়। রাজ্য কমিটির প্রথম বৈঠকেই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে রাজ্য কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

এদিন বৈশাখী বলেন, ‘ বিজেপি সর্বভারতীয় দল। দলের নেতৃত্বের নির্দিষ্ট ভাবনাচিন্তা রয়েছে। আমাকে দলে যে দায়িত্ব দেবে সাধ্যমতো পালন করবো।’ তিনি বলেন, ‘ আমি খুশি, কৃতঞ্জ আমাকে সুযোগ দেওয়ার জন্য। বহু বিজেপি কর্মী, সমর্থক আমাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। একুশে বাংলায় পরিবর্তনের লড়াইয়ে অংশ নেওয়ার জন্য আমি মানসিকভাবে তৈরি। দল যে দায়িত্ব দেবে আপ্রাণ চেষ্টা করবো তা সম্পূর্ণ করতে।’

দলের প্লাস, মাইনাস পয়েন্ট নিয়ে তাঁর নিজস্ব ভাবনাচিন্তা রয়েছে। দল জানতে চাইলে বিষয়গুলো জানাবেন, নিজের মতামতও জানাবেন। কি রকম ? বৈশাখী জানালেন, ‘রাজ্যের অন্যত্র,গ্রাম বাংলায় বিজেপি শক্তিশালী, কিন্তু দুর্বলতা রয়েছে দক্ষিণ কলকাতা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায়। ‘ কি ধরনের দুর্বলতা? বৈশাখীর উত্তর, ‘ দক্ষিণ কলকাতার একটা বিশেষ শ্রেণির ‘ এলিট’ সম্প্রদায় রয়েছেন যাঁরা নিজেদের রাজনৈতিক বিশ্বাস সহজে বদলায় না। এখানে একটা বাণিজ্যিক শ্রেণির বসবাস রয়েছে, তাঁরাও নিজেদের মতামত সহজে বদলাতে চান না। এই জায়গাটায় ‘পেনিট্রেট’ করতে হবে। অবশ্যই এটা আমার বিশ্বাসের কথা বললাম।’

আরও পড়ুন: আটকে থাকা মামলার দ্রুত শুনানির নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের

তিনি আরও বলেন, ‘ আমার মনে হয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো লড়াকু নেত্রীকে হারাতে হলে শরীরী ভাষা আরও আক্রমণাত্মক হওয়া জরুরী। কেন মানুষ বিজেপিকে ভরসা করবেন সেই গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করতে হবে।’ সব মিলিয়ে গেরুয়া শিবিরে ‘ ফিলগুড’ পরিবেশ, একুশের যুদ্ধে শোভন- বৈশাখী তাঁদের ধারালো অস্ত্র হতে চলেছে এটা এখন দিনের আলোর মতো স্পষ্ট।

Related Articles

Back to top button
Close