fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূল দলে অসুবিধা হলে কংগ্রেসে স্বাগত: অধীর চৌধুরী

কৌশিক অধিকারী, বহরমপুর: তৃণমূল দলে অসুবিধা হলে কংগ্রেসে দলে স্বাগত। বহরমপুরে এই কথা বললেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি তথা লোকসভা পরিষদীয় দলনেতা অধীর চৌধুরী। বুধবার বহরমপুরে জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠকে অধীর চৌধুরী বলেন, তৃণমূল দলের কোনও রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব নেই। যারা মনে করবেন তৃণমূল দল করতে অসুবিধা হচ্ছে তাদের জন্য কংগ্রেস দল খোলা আছে, কংগ্রেস দল থেকে তৃণমূল দলের জন্ম হয়েছিল, আপনারা বিদ্রোহ ঘোষণা করে আপনারা কংগ্রেস যোগদান করুন আপনাদের মর্যাদা দেওয়ার ক্ষমতা কংগ্রেসের আছে বলে মন্তব্য করেন অধীর চৌধুরী। অন্যদিকে মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সভাধিপতি মোশারফ হোসেনের দুইজন নিরাপত্তারক্ষী তুলে নেওয়া হয়েছে জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

এই প্রসঙ্গে অধীর চৌধুরী বলেন, সভাধিপতি হল জেলার মুখ্যমন্ত্রী। একজন জেলার মুখ্যমন্ত্রী তার নিরাপত্তা রক্ষী তুলে নেওয়া হয়েছে তার কারণ তাদের দলের নেতা শুভেন্দু অধিকারীর অনুষ্ঠান পরিচালনা দায়িত্ব নেওয়া হয়েছিল। আগে প্রাক্তন জেলা সভাধিপতি কে মিথ্যে কেস দেওয়া হয়েছে। তৃণমূল দলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করতে গেলে হিম্মত রেখে বিদ্রোহ করতে হবে। তৃণমূল দল প্রশাসন কে দিয়ে তৃণমূল দলকে রক্ষা করার জন্য বিভিন্ন ভাবে অপব্যবহার করছে। তৃণমূল দলে গন ভাঙন চলছে। পুলিশ কার নিরাপত্তারক্ষী তুলে নিল এই অঙ্ক আর খাটবে না, এই অঙ্ক বেসামাল হয়ে যাবে। তৃণমূল দলের কোনও রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব নেই।

আরও পড়ুন: কোভিড কমলে ডিসেম্বর থেকে শুরু টেট উত্তীর্ণদের নিয়োগ, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

অন্যদিকে বুধবার থেকে চলতে শুরু করেছে ট্রেনের চাকা। এই প্রসঙ্গে অধীর চৌধুরী বলেন, পশ্চিমবঙ্গে যখন ট্রেন চলবে সেখানে সামাজিক দুরত্ব রক্ষা করার দায়িত্ব পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ প্রশাসনের পাশাপাশি সাধারণ মানুষ কেও বিশেষ ভূমিকা পালন করতে হবে। হাইকোর্ট বলছে, হাইকোর্টের নির্দেশ না মানা হলে আত্মহত্যা করা সমান। পশ্চিমবঙ্গে ভালো পরামর্শ হাইকোর্টের নির্দেশ অবহেলা ও অবজ্ঞা করা হয়। ট্রেন চালানো প্রয়োজন আমরা জানি, সামাজিক দুরত্ব আমরা না রক্ষা করতে পারি, কোভিড সংক্রমণ গোপন করা গেলেও সংক্রমণের ভয়বহতা কম ছিল বঙ্গে। ট্রেন চললেও সামাজিক দুরত্ব বজায় না রাখলে সংক্রমণ ভুমিকম্প হবে ফলে রাজ্যে সরকারকে আরও দক্ষতা পালন করতে হবে।
অন্যদিকে বিহারের ফলাফল নিয়ে আসাউদ্দিন ওয়াইসির দল সর্ব ভারতীয় মজলিসে-ই-ইত্তেহাদুল কে আক্রমণ করে অধীর চৌধুরী বলেন, ওয়েস্যার দল মিম দেশ জুড়ে টাকা নিয়ে বিরোধিতা করছে। লন্ডনে অফিস আছে সেই চেম্বারে মিম দল পরিচালিত হয়। যেখানে বিজেপি দলের অসুবিধা হয় সেখানে তাদের সুবিধা করে দেয়। বিহারে মিম দল মহাজোট বন্ধন বিরোধিতা না করলে বিজেপি দল ক্ষমতায় আসত না বলে কটাক্ষ করেন অধীর চৌধুরী ।

Related Articles

Back to top button
Close