fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

‘কথা না শুনলে সরকারই চালাবে বেসরকারি বাস’, চরম হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ‘কথা না শুনলে সরকারই চালাবে বেসরকারি বাস’, চরম হুঁশিয়ারি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী।মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্টই জানান, বাস মালিকদের একদিন সময় দেওয়া হচ্ছে। যদি বুধবারের মধ্যে শহরের রাস্তায় ৬ হাজার বেসরকারি বাস না নামে, তাহলে শুক্রবার থেকে সব বাস নিয়ে নেবে রাজ্য সরকার। তারপর সেই বাস চালাবে রাজ্য সরকারই। মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর স্বভাবতই অতান্তরে বাস মালিকেরা।

বাস সংগঠনগুলিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে মমতা বলেন, ‘আমি নিজে ওঁদের সঙ্গে কথা বলেছি বৈঠকে। কিন্তু এরপরও যদি ওঁরা কথা না মানেন, তাহলে আমরা ঠিক করেছি আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব। প্রয়োজন হলে এই বাস সরকার নিয়ে নিজেদের ড্রাইভার দিয়ে মানুষের জন্য চালাবে। খরচ সরকারই করবে। নিয়ম মেনে বাস মালিকদের ভাড়াও মিটিয়ে দেওয়া হবে। বেসরকারি বাসের চালক, কন্ডাক্টররা যদি সরকারের হয়ে কাজ করতে রাজি হয়, তাহলে সরকারই তাঁদের বেতন দেবে। তা না হলে বিকল্প ব্যবস্থা করা হবে। এটা বিপর্যয় আইনেই করা হবে।’

মুখ্যমন্ত্রী বলেন,’মানুষের দুর্ভোগ কমাতে ২৭ কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে চেয়েছিলাম। সাধারণ মানুষের পকেট থেকে টাকা না কেটে আমরাই খরচ দেব ভেবেছিলাম। আমি নিজে বাসমালিকদের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। তাঁরা রাজিও হয়েছিলেন। কিন্তু পরে দেখলাম অন্যরকম বিবৃতি দিচ্ছে।’ মুখ্যমন্ত্রী বলেন,’সরকারের নীতিই হল কখনও সফট কখনও টাফ। তাই বুধবার, ১ জুলাই থেকে রাস্তায় বাস না নামলে আইন অনুযায়ী সরকারকে ব্যবস্থা নিতে হবে।’ ‘এটা দরাদরি করার সময় নয়। মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সময়।’

আরও পড়ুন: আগামীকাল থেকে খুলছে চ্যাংড়াবান্ধা আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট, নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী

বাস মালিকদের উদ্দেশে তিনি ফের বলেন, এদিন মমতা বাস ইউনিয়নগুলির উদ্দেশে সাফ বলেন, ‘সরকারের টাকা নেই তাও ২৭ কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে চেয়েছিলাম, যাতে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি না হয়। আমি আশা রাখব বৈঠকে যা কথা হয়েছে সেই মত আগামিকাল থেকে ৬০০০ বেসরকারি বাস নামানো হবে। প্রতি বাসের জন্য ১৫ হাজার টাকা দেওয়া হবে। সংগঠনগুলির কাছে আবেদন করছি ইগোর লড়াই বন্ধ করে মানুষের স্বার্থে পরিষেবা দিন। সেটা না হলে ইচ্ছের বিরুদ্ধে আমরা বাধ্য হব আইনের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়ার। বেসরকারি বাসের ড্রাইভাররা যদি আসেন ভালো, না হলে সরকার নিজের মতো লোক দেখে নেবে। এটা করার জন্য সরকার দু’দিন সময় নেবে। ৩ জুলাই ঠিক হবে আগামী পরিকল্পনা।’

 

Related Articles

Back to top button
Close