fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দালালচক্রের রমরমা রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজে, গ্রেপ্তার ১

শান্তনু চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জঃ হাসপাতালে ভর্তি থেকে অসুস্থ রোগীর দেখাশোনা কখন ও ভালো চিকিৎসার প্রলোভন দেখিয়ে রোগীকে হাসপাতাল থেকে নার্সিং হোমে নিয়ে যাওয়া- অর্থের বিনিময়ে এসমস্ত পরিষেবা ভালোই মিলছে রায়গঞ্জ সরকারী মেডিক্যাল কলেজ-হাসপাতালে। তবে সরকারী হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবার সুযোগ থাকলেও “ফেলো কড়ি মাখো তেল” প্রক্রিয়া জাঁকিয়ে বসেছে রায়গঞ্জ সরকারী মেডিক্যাল কলেজে। হাসপাতালের কয়েকজন অস্থায়ী কর্মীর যোগসাজশে দালাল চক্রের রমরমা কারবার চলছে হাসপাতালে। সর্বস্বান্ত হচ্ছেন গরীব মানুষেরা।
উল্লেখ্য রায়গঞ্জ সরকারী মেডিক্যাল কলেজে দালাল চক্রের অভিযোগ নতুন কিছু নয়। হাসপাতালে রোগী ভর্তি, স্ট্রেচারের ব্যবস্থা, অক্সিজেন সিলিন্ডার লাগানো, সহ বিভিন্ন পরিষেবার বিনিময়ে গরীব,দুঃস্থ মানুষদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। কয়েকমাস আগে হাসপাতাল থেকে এসব অভিযোগ পেয়ে সি আই ডি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। কয়েকমাস ঠিক থাকার পর ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে দালাল চক্র। বৃহস্পতিবার হাসপাতাল চত্বর থেকে একদালাল কে হাতেনাতে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দিলো রোগীর আত্মীয়-পরিজনেরা।

মনি সাহা, পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া  এক দালাল

হাসপাতালসূত্রে জানা গিয়েছে ধৃত ঐ ব্যাক্তির নাম মনি সাহা। রোগীর আত্মীয়দের অভিযোগ, ” রোগীকে ভালো করে দেখাশোনার কথা বলে জোড় করে টাকা আদায় করা হচ্ছে। টাকা না দিলে চিকিৎসা করা হবে না বলেও হুমকী দিচ্ছে। একাধিক ব্যাক্তি এই চক্রের সঙ্গে জড়িত। কারো কাছে দুশো, কারোর কাছে তিনশো টাকা করে নিচ্ছে এই দালালরা।”

অন্যদিকে,ধৃত মনি সাহা টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। তিনি বলেন,” টাকা নিয়েছি, তবে চা খাওয়ার জন্য।” অন্যদিকে রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ দিলীপ পাল বলেন,” দালাল চক্রের অভিযোগ আমাদের কাছে রয়েছে। স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী এবিষয়ে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছেন। হাসপাতালে চিকিৎসা সম্পূর্ণ বিনাপয়সায় হয়। আজ একজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এধরনের অভিযোগ এলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close