fbpx
কলকাতাহেডলাইন

রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের অধিকার বহির্ভূত কাজ অব্যাহত: জয়দীপ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্য মানবাধিকার কমিশন অনৈতিক ও বেআইনি কার্যকলাপ অব্যাহত রেখেছে। আভিযোগ করলেন অল ইন্ডিয়া লিগাল এড ফোরামের সাধারণ সম্পাদক তথা সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি জয়দীপ মুখোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তিনি ফের একবার রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের কার্যকলাপের বিরুদ্ধে সরব হলেন। এরআগেও তিনি কমিশনের চেয়ারপার্সেনের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন। এদিন এক বিবৃতি জারি করে ক্ষোভ উগড়ে দেন। তাঁর কথায় স্পষ্ট রাজ্য মানবাধিকার কমিশন আধিকার বহির্ভূত কাজ করছে।

এদিন, জয়দীপবাবু বলেন, ‘রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারপার্সন গিরিশ গুপ্ত বিভিন্ন আইন বহির্ভূত এবং মানবাধিকার কমিশন অ্যাক্ট ১৯৯৩ -এর অধিকার বহির্ভূত কার্যকলাপ করে চলেছেন। এরআগে তিনি কমিশনে বেঞ্চ গঠন করার চেষ্টা করেছিলেন। রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারপার্সন ভুলে যাচ্ছেন যে, রাজ্য মানবাধিকার কমিশন কোনও আদালত নয়, এটা সম্পূর্ণ একটি স্ট্যাটুটরি অথরিটি । এর সুনির্দিষ্ট নিয়ম – কানুন আছে। রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের গাইডলাইনে লেখাই আছে, কতদূর পর্যন্ত তাদের এক্তিয়ার। কিন্তু গত মাসে রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারপার্সন তাঁর জয়েন্ট সেক্রেটারিকে দিয়ে একটি নির্দেশিকা প্রদান করেছেন।

[আরও পড়ুন- হাইকোর্টের রায়ে খুশি হলেও মদন ঘড়াইয়ের মৃত্যুর সিবিআই তদন্তের দাবিতে অনড় লকেট]

যেখানে রাজ্যের সমস্ত জেলাশাসক এবং পুলিশ সুপারদের নির্দেশিকা দিয়ে বলেছেন আসন্ন দুর্গাপুজোয় রাজ্যের প্রতিটি দুর্গাপুজোর স্টলে মানবাধিকার কমিশনের লিফলেট বিলি করবার জন্য, যা একেবারেই অধিকার বহির্ভূত হস্তক্ষেপ। এর জন্য প্রতিটি জেলার জেলাশাসকের তহবিলে টাকা পাঠাবে। রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের মত একটি স্ট্যাটুটরি অথরিটি কি করে রাজ্য সরকারের অর্থ দফতরের অনুমতি ছাড়া সরাসরি জেলার জেলাশাসকের তহবিলে অনুদান পাঠাচ্ছে? রাজ্য সরকারের অর্থ দফতরের অনুমতি ছাড়া রাজ্য মানবাধিকার কমিশন কখনোই কোনও অর্থ জেলাশাসকের তহবিলে পাঠাতে পারেনা। এইরুপ অধিকার বহির্ভূত কার্যকলাপ অবিলম্বে বন্ধ হওয়া উচিৎ। দরকার পড়লে জনস্বার্থ মামলা করতে বাধ্য হব।’

 

Related Articles

Back to top button
Close