fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

ওসামা বিন লাদেন শহিদ! আখ্যা ইমরান খানের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ওসামা বিন লাদেন শহিদ! পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তেমনই বলেছেন। এক বছর আগে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ওসামা বিন লাদেনকে পাকড়াও করতে দেশের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের কৃতিত্ব রয়েছে বলে দাবি করেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আর ঠিক এক বছর পরে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে উল্টো সুর গাইলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ‘ওসামা বিন লাদেন একজন শহিদ। আমেরিকার লড়াইয়ে যোগ দিয়ে ভুল করেছে পাকিস্তান।ইমরানের চোখে লাদেনের সেই মৃত্যু শহিদের মর্যাদা পেয়েছে। আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আল কায়দার প্রধান লাদেনের মৃত্যুতে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছিল গোটা বিশ্ব। কিন্তু পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হয়তো এখনও আড়ালে-আবডালে লাদেনের শোকে চোখের জল ফেলেন!

পাকিস্তান সংসদে দাঁড়িয়ে ওসামা বিন লাদেনের মতো একজন সন্ত্রাসবাদীকে যেভাবে ‘শহিদ’ আখ্যা দিয়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী, তা নিয়ে বিতর্কের ঝড় উঠেছে। রাজনেতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, ট্রাম্প প্রশাসন যেভাবে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে তা মোটেই পসন্দ নয় পাক প্রধানমন্ত্রীর। তাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে বিশেষ বার্তা দিতেই এমন ডিগবাজি খেয়েছেন ইমরান খান। ইমরানের মন্তব্যের সমালোচনা করে দেশের প্রাক্তন বিদেশ মন্ত্রী তথা ‘মার্কিন বান্ধব’ খাজা আসিফ বলেছেন, ‘আজ ওসামাকে শহিদ আখ্যা দিয়ে ইমরান খান ইতিহাসকে কলুষিত করলেন।’

আরও পড়ুন: ফের উত্তপ্ত উপত্যকা, নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে খতম ৩ সন্ত্রাসবাদী

অনেকে বলছেন, মুখ ফস্কে বেরিয়েছে। কেউ কেউ আবার বলছেন, ইমরান খান যে দেশের প্রধানমন্ত্রী সেটা তো জঙ্গিদেরই ঘাঁটি।২০০১ সালে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে হামলার মূলচক্রী লাদেন হয়তো প্রথমবার বিশ্বের কোনও দেশে শহিদের আখ্যা পেলেন। না হলে একমাত্র জঙ্গি সংগঠনে তাঁর মতো কুখ্যাত উগ্রপন্থীরাই তাঁকে শহিদ বলে মনে করে। এদিন পার্লামেন্টে ইমরান বলেছেন, আমেরিকানরা অ্যাবোটাবাদে এসে লাদেনকে মেরে শহিদ করে দিয়েছিল। ওই খবরে আমরা খুবই বিব্রত বোধ করেছিলাম।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদের গ্যারিসন টাউনে জঙ্গি সংগঠন আল কায়েদার প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় মার্কিন নেভি সিল। অভিযানে লাদেন নিহত হয়েছেন বলে মার্কিন সেনার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়।যদিও আজ পর্যন্ত লাদেনের মৃতদেহ কেউ দেখেনি। আমেরিকা লাদেনের মৃতদেহ দেখাবে না বলে জানিয়েছিল। তারাজ জানিয়েছিল লাদেনের মৃতদেহ কফিনে ভরে সমুদ্রের নিচে ফেলা হয়েছে।

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close