fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

‘চিনা মিউজিকে’ আউট ইমরান! পাক জমি দখল করে J-17 মোতায়েন চিনের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের বিরুদ্ধে সেকেন্ড এবার পাকিস্তানের মাটিতে বায়ু সেনা মোতায়েন করল জাই জিং পিং প্রশাসন।

পাকিস্তানের তিনটি বিমান ঘাঁটিতে মোতায়েন রয়েছে ‘পিপলস লিবারেশন আর্মি এয়ারফোর্স’-এর বা চিনা বায়ুসেনার যুদ্ধবিমান। শুধু তাই নয়, কান্দানওয়ারি, রহিম যার খান ও সুককুর বিমানঘাঁটিতে মজুত রয়েছে চিনা কয়েকশো জওয়ান।

জানা গিয়েছে, পাক বিমানঘাঁটিগুলিতে চিনের প্রায় ২০টি JF-17, J-20-সহ অন্য বিমান রয়েছে। দু’দেশের মধ্যে যুদ্ধ বাঁধলে পাকিস্তানের মদতে পাঞ্জাব, রাজস্থান ও পাক অধিকৃত কাশ্মীরের দিকে ‘সেকেন্ড ফ্রন্ট’ খুলতে পারে চিন বলেই মত প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের।

এদিকে, গোটা পরিস্থিতির উপর কড়া নজর রাখছে ভারত। চিন ও পাকিস্তানের সঙ্গে দুই ফ্রন্টে লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত ভারতীয় বায়ুসেনা। তবুও কোনও ঝুঁকি না নিয়ে সামরিক শক্তি বাড়াতে রাশিয়ার কাছ থেকে ‘9K38 Igla’ মিসাইলের দ্রুত আমদানি করতে চলেছে ভারত। জমি থেকে আকাশে আঘাত হানতে সক্ষম এই মিসাইলটিতে ‘ইনফ্রারেড সিকার’ রয়েছে। এর মদতে ভারতীয় আকাশ সীমায় ঢুকলে চিনা ও পাকিস্তানী যুদ্ধবিমানকে সহজেই ধরাশায়ী করতে পারবে ভারতীয় ফৌজ। শুধু তাই নয়, লাদাখে লাগাতার টহল দিচ্ছে ভারতীয় বায়ুসেনার সুখোই-৩০ যুদ্ধবিমান। উল্লেখ্য, চিনের উপর চাপ সৃষ্টি করে সম্প্রতি পূর্ব চিন সাগরের কাছে মিসাইল মোতায়েন করেছে জাপান। প্রশান্ত মহাসাগরে যুদ্ধবিমানবাহী রণতরী মোতায়েন করেছে আমেরিকাও।

সবমিলিয়ে পরিস্থিতি কিন্তু যথেষ্ট স্পর্শকাতর বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ সঠিক পদক্ষেপ একমাত্র পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পক্ষে অনুকূল হবে। কিন্তু সামান্য পানি থেকে চুন খসলেই পরিস্থিতি বিপজ্জনক হতে পারে বলে মত কূটনৈতিক মহলের।

Related Articles

Back to top button
Close