fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

চাপে চিন! অস্ট্রেলিয়ার পর এবার জাপানের নৌঘাঁটিও, সমুদ্রে আগ্ৰাসী হচ্ছে ভারত

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় চিনকে রুখতে বহু দেশীয় শক্তিবলয় গঠনে উদ্যোগী ভারত‌। ভারত মহাসাগরের পাশাপাশি ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে একাধিক দেশের সঙ্গে আগ্রাসী নৌ-সামরিক চুক্তি সম্পাদন করছে নয়াদিল্লি। আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুরের পর সমুদ্রপথে বেজিং এর বিরুদ্ধে এবার ভারতের সহযোগী হতে চলেছে জাপান।

এবার চিনকে চাপে রাখতে উদীয়মান সূর্যের দেশ জাপানের  সাথে প্রতিরক্ষা চুক্তি করতে চলেছে ভারত। প্রতিরক্ষা সুত্রের খবর অনুযায়ী, ভারত মহাসাগর এলাকায় চিনের আগ্রাসন ঠেকাতে খুব শীঘ্রই জাপানের সাথে পারস্পরিক কৌশলগত সহযোগিতা (MLSA) চুক্তি করতে চলেছে ভারত।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে এমন একটি স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারশিপ চুক্তি স্বাক্ষরিত করেছে নয়াদিল্লি। চুক্তি অনুযায়ী প্রশান্ত মহাসাগরের ছড়িয়ে থাকা বিভিন্ন অস্ট্রেলিয়ান নৌঘাঁটি গুলিতে নৌসেনা মোতায়েন যুদ্ধজাহাজ মেরামত, বিশ্রাম এবং জ্বালানি ধরার ক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়ান নেভাল বেস গুলি ব্যবহার করতে পারবে ভারত। এই পদক্ষেপ দক্ষিণ চীন সাগরে পাশাপাশি ইন্দো প্যাসিফিক অঞ্চলেও নয়াদিল্লির প্রভাব বাড়িয়ে তুলবে বলে মনে করছে কূটনৈতিক মহল। প্রয়োজনে ভারতের বিভিন্ন সেনাঘাঁটি গুলো ব্যবহার করতে পারে অস্ট্রেলিয়ান নৌ সেনা। ২০১৫ সালে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় যা AusIndex নামে পরিচিত।

শুধু তাই নয় ভারত মহাসাগর ও এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় দক্ষিণ কোরিয়ার নৌঘাঁটি গুলো ব্যবহার করতে পারবে ভারত। পূর্বেই এমন চুক্তি সম্পাদিত হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া ও সিঙ্গাপুর এবং ফ্রান্সের সঙ্গেও।‌ ভারত প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় সেই দেশগুলির একাধিক নৌ-ঘাঁটি ও প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারে ভারত। ‌

পাশাপাশি চিনের পক্ষে আরও একটি উদ্বেগের খবর তা হলো ব্রহ্মোসের পর এবার বিশেষ ক্রুজ মিসাইল আকাশ কেও ভিয়েতনামে রপ্তানি করতে চলেছে ভারত। যা দক্ষিণ চিন সাগরে চিনকে বেকায়দায় ফেলবে বলে মনে করছে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক মহল।

Related Articles

Back to top button
Close