fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ব্যারাকপুর ও খড়দহে ফের করোনা আক্রান্তের সন্ধান, সিল এলাকা

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনার ব্যারাকপুর মহকুমায় ফের দুজনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ল । করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ব্যারাকপুর পুরসভার ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের এন এন বাগচী রোডের বাসিন্দা এক গৃহবধূ । এছাড়াও করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন খড়দহের পাতুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা এক বৃদ্ধ অবসর প্রাপ্ত পুলিশ কর্মী । করোনায় সংক্রমিত দুজনকেই কলকাতার করোনা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে ।

 

দুই করোনা আক্রান্ত রোগীর কারুর ভিন রাজ্য বা ভিন দেশে যাওয়ার পুরনো কোন ইতিহাস নেই । এন এন বাগচী রোডের বাসিন্দা গৃহবধূ সম্প্রতি জ্বরে অসুস্থ হয়ে পড়লে তার করোনা পরীক্ষা করা হয় । তাতেই তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে । এই ঘটনায় নড়েচড়ে বসে প্রশাসন । এন এন বাগচী রোড সম্পূর্ণ জীবাণুমুক্ত করে দেওয়া হয় ।

 

ব্যারাকপুর পৌরসভার পুর পারিষদ সুপ্রভাত ঘোষ জানান, “আমরা এন এন বাগচী রোড ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে দিয়েছি । এলাকা জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে । এলাকাবাসীকে আমরা সচেতন করছি, কেউ যেন বাড়ির বাইরে না বেরোন । এই এলাকাটি কন্টেনমেন্ট এলাকা ঘোষণা করা হয়েছে ।”

 

এদিকে খড়দহের পাতুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অরবিন্দ পল্লীর বাসিন্দা এক বৃদ্ধ করোনায় সংক্রমিত হয়েছে । জানা গেছে তিনি কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন । তার ডায়ালাসিস চলছিল ব্যারাকপুরের বি এম আর সি নার্সিংহোমে । ওই বেসরকারি হাসপাতালে একসঙ্গে ৮ জন করোনায় সংক্রমিত হন কয়েকদিন আগেই । সেই একই হাসপাতালে চিকিৎসা চলছিল এই বৃদ্ধ অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মীর । মনে করা হচ্ছে সেখান থেকেই সংক্রমিত হয়েছেন পাতুলিয়ার বাসিন্দা ওই বৃদ্ধ । খড়দহের অরবিন্দ পল্লী এলাকাটি সিল করে দিয়েছে প্রশাসন । স্থানীয় বাসিন্দাদের গৃহবন্দী থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।

 

 

পাতুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান কিশোর বৈশ্য বলেন, “আমরা সব সময় মানুষের পাশে আছি । স্থানীয় বাসিন্দাদের সচেতন করা হয়েছে । কেউ যেন বাড়ির বাইরে না বেরোন সেই নির্দেশিকা মেনে চলতে বলা হয়েছে । স্থানীয় বাসিন্দাদের যা দরকার তা ফোন করে জানাতে বলা হয়েছে । শীঘ্রই এই অঞ্চলটি জীবাণুমুক্ত করা হবে । সকলকে অনুরোধ করছি কেউ আতঙ্ক ছড়াবেন না, সতর্ক থাকুন ।”

Related Articles

Back to top button
Close