fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

প্রথম ওমিক্রন আক্রান্তের মৃত্যু ব্রিটেনে, সকলকে বুস্টার ডোজ নেওয়ার পরামর্শ বরিস জনসনের

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্কঃ গোটা দুনিয়ায় আস্তে আস্তে ভিলেনের জায়গা করে নিচ্ছে ওমিক্রন। করোনার এই নয়া ভ্যারিয়েন্ট কিভাবে মানব শরীরে সংক্রামিত হচ্ছে, বা কতখানি ক্ষতিকারক সেই সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে কিছু জানাতে পারেননি বিশেষজ্ঞরা। এর মধ্যেই আবার সেই উদ্বেগকে বাড়িয়ে ওমিক্রনের হানায় ব্রিটেনে প্রথম মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।

ভারতে ইতিমধ্যেই ওমিক্রন তার অস্তিত্ব বোঝাতে শুরু করেছে। কেরল, অন্ধ্র প্রদেশ ও চণ্ডীগড়ে প্রথম আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। দেশে ওমিক্রনে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮-এ। সংক্রমণ রুখতে কড়া নিয়ম জারি করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। কলকাতায় ওমিক্রন সন্দেহে দুজনকে বেলেঘাটা আইডি-তে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন আলিপুর ও বারাসতের বাসিন্দা।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, খোদ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এই খবর জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী জনসন বলেন, ব্রিটিশ রাজধানীর প্রায় ৪০ শতাংশ করোনার কেসের ক্ষেত্রে দায়ী ওমিক্রন স্ট্রেইন। হাসপাতালগুলিতে এই স্ট্রেইনে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে। ব্রিটেন প্রশাসনের তরফে সোমবার জানানো হয়েছে, ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট  ‘ভীষণ দ্রুত হারে” ছড়িয়ে পড়ছে এবং বর্তমানে লন্ডনে মোট সংক্রমণের প্রায় ৪০ শতাংশের জন্য দায়ী ওমিক্রন। এই পরিস্থিতিতে সাধারণ নাগরিকদের বুস্টার শট নেওয়া উচিত।

ইতিমধ্যেই সরকারের তরফে ডিসেম্বরের মধ্যে বয়স্কদের বুস্টার ডোজ নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। বিশ্বের অন্তত ৫৯টি দেশে পৌঁছে গিয়েছে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন। সর্বাধিক আক্রান্তের খোঁজ মিলছে দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রিটেন ও ডেনমার্ক থেকে। এই পরিস্থিতিতে করোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তাঁর আশঙ্কা ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টই করোনার তৃতীয় ঢেউ ডেকে আনবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close