fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

ভয়ানক কান্ড, গ্রিনল্যান্ডে প্রতি মিনিটে বরফ গলছে ১০ লক্ষ টন!

নুক, (সংবাদ সংস্থা): বিশ্ব উষ্ণায়নের জেরে বরফ গলতে শুরু করেছে গ্রিনল্যান্ডে। এবং তা এতই দ্রুত গলছে যে ক্যালিফোর্নিয়ায় জলস্তর ৪ ফুট উপরে উঠে এসেছে। প্রত্যেক মিনিটে বরফ গলছে ১০ লক্ষ টন। এর আগে গত দুবছরেও বরফ গলেছে। কিন্তু তা এত মারাত্মক ছিল না। এক গবেষণা প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে জলবায়ু ও পরিবেশ বিষয়ক জার্নাল নেচার কমিউনিকেশনস আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টে।

ডেনমার্কের স্বায়ত্তশাসিত দ্বীপদেশ গ্রিনল্যান্ডে ২০০৩ সালে ২০ হাজার ৫৯ কোটি টন বরফ গলেছিল। ২০১২ তে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৫১ হাজার ১০০ কোটি টন। আর ২০১৯-সালে তা সব রেকর্ডকে ছাপিয়ে গিয়েছে। নেচার কমিউনিকেশনস আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের রিপোর্ট বলছে এই বরফ জমতে দীর্ঘ সময় লেগেছিল। জার্মানির আলফ্রেড ওয়েজনার ইনস্টিটিউটের ভূ-বিজ্ঞানী লেখক ইনগো স্যাসজেন বলেছিলেন, শুধুই যে গ্রিনল্যান্ডের বরফ স্তর কমছে তা নয়, এটি অত্যন্ত দ্রুত গতিতে গলে যাচ্ছে। গত বছরই বরফ গলার ফলে ০.০৬ ইঞ্চি জলস্তর বৃদ্ধি পেয়েছিন।

এছাড়া, নাসার বরফ বিজ্ঞানী অ্যালেক্স গার্ডনার বলেছেন, শুনতে খুব সামান্য লাগলেও এটি কিন্তু আয়তনে বিশাল। শুধু গ্রিনল্যান্ড নয়, অন্যান্য বরফের স্তর এবং হিমবাহগুলি গলছে। বাড়ছে সমুদ্রের জলের উষ্ণতাও। ফলে জলস্তর বাড়ছে, বাড়ছে বন্যার আশঙ্কাও।

গ্রিনল্যান্ডে স্বাভাবিক কারনেই ১৯৮৪ তে কিছু বরফ গলেছিল। ২০০৩ সালে নাসার উপগ্রহচিত্রে ধরা পড়ে কীভাবে বরফের চাদর গলছে। কিন্তু এরপর দূষণের প্রভাবে সেই মাত্রা আরও অনেক বেড়ে যায়। গ্রীষ্মে গ্রিনল্যান্ডের আবহাওয়ার ক্ষেত্রে সাধারণত দুটি প্রভাব পড়ে। গত বছর, কানাডার উপর একটি উচ্চচাপ সৃষ্টি হয়। যার ফলে উত্তরাঞ্চলের গরম বাতাস গ্রিনল্যান্ডে প্রবাহিত হয়েছিল, যা আরও বরফ গলতে বাধ্য করেছিল। এছাড়াও গরম গত বছরের তুলনায় ৩ ডিগ্রি বেড়ে গিয়েছে। সব মিলিয়ে এই প্রভাব।

উল্লেখ্য, গ্রিনল্যান্ডের বরফ গলা নিয়ে বিজ্ঞানীদের মধ্যে উদ্বেগ বেড়েই চলেছে। সেই সঙ্গে এ নিয়ে বহু গবেষণাও চলছে। গত সপ্তাহেই আরও একটি গবেষণা রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, গ্রিনল্যান্ডের বরফ গলন এমন স্তরে পৌঁছে গেছে যেখান থেকে আর কখনও সরে আসা সম্ভব নয়।

Related Articles

Back to top button
Close