fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অধিকারী গড়ে ফের তৃণমূলে ধস, বিজেপিতে যোগ দিল ২০০টি পরিবার

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাট : ২০২১ সালের নির্বাচন যত এগিয়ে আসবে তৃণমূল দলের ধসের সংখ্যা তত বৃদ্ধি পাবে। একের পর এক অধিকারী গড়ে তৃণমূলের সর্মথকরা বিজেপি দলে নাম লেখানোর ফলে আর এক বার প্রমাণ করে দিল  তৃণমূল দলের সৃষ্টির প্রথম দিকে যে আদর্শ নীতি ছিল সেই আদর্শ নীতি থেকে মানুষ বিচ্যুত হছে।

গত দু মাসের মধ্যে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় পর এক তৃণমূল সমর্থক বিজেপি দলে অন্তর্ভুক্ত  হওয়ার  যে প্রভাবের অধিকারী গড় ছিল তা ক্রমশ জনসমর্থনের হারাচ্ছে বলে  অনুমান রাজনৈতিক মহলের। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকের অন্তর্গত খারুই ২ অঞ্চলের সাতটিকরী বুথে  প্রায়  ২০০টি পরিবার তৃণমূল সিপিআইএম দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করলেন।  দলের পতাকা তুলে দিলেন তমলুক সাংগঠনিক জেলা বিজেপির সভাপতি নবারুণ নায়েক।

আরও পড়ুন: পাশবিক, পুত্র সন্তানের আশায় গর্ভবতী স্ত্রী’র পেট কেটে লিঙ্গ জানার চেষ্টা স্বামীর

শ্রী নায়েক বলেন, যত বিরোধীদের উপর সন্ত্রাস আসবে বিজেপি দলে যোগদানের  হিড়িক বৃদ্ধি পাবে।  ভারতীয় জনতা পার্টির আদর্শ নিষ্ঠা আছে বলেই জেলার বিভিন্ন ব্লকে যোগদানের হিড়িক লক্ষ্য করা যাচ্ছে। নির্বাচন  যত এগিয়ে আসবে তৃণমূল দলের ভাঙ্গন কত বৃদ্ধি পাবে বলে  যোগদানকারীদের মাঝে আশা ব্যক্ত করেন। সেই সঙ্গে তিনি আরো বলেন, এই এলাকার সদ্য আমফানের ঝড়ে ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে, মানুষজন সোচ্চার হয়েছে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিজেপি লড়াই জারি রেখেছে,  আগামী দিনে থাকবেও।  উক্ত  যোগদান পর্বে উপস্থিত ছিলেন তমলুক সাংগঠনিক জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক নারায়ণ চন্দ্র মাইতি, বিজেপির জেলার অন্যতম নেতা    বামদেব গুছাইত, আশিস মণ্ডল, প্রমূখ নেতৃত্ব।

 

যে সমস্ত পরিবারগুলি বিজেপি দলে যোগদান করলেন সেই সব পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে,  তৃণমূল দলটার মধ্যে দুর্নীতিতে ভরে গেছে। স্বচ্ছতার কোন দিক দিশা নেই। মানুষের কাজ করার জন্য দল টার মধ্যে ছিলাম, মানুষের পাশে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে নেতাদের কোনো প্রয়াস লক্ষ্য করা যাচ্ছে না ইদানিং তাই বাধ্য হয়ে দল পরিবর্তন করে ভারতীয় জনতা দলে  মানুষের সেবার করার জন্য পরিবর্তন হলাম।

শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকের তৃণমূল নেতা জয়দেব বর্মন বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর আদর্শের নানা দিক গুলি আছে বলেই দলটার মধ্যে স্বচ্ছতা আছে,যারা এমন কথা বলছে তাদের এই কথার কোন ভিত্তি নেই। ২০০টি পরিবারের কথা বলা হয়েছে তার কোনো সত্যতা নেই। যারা যোগদান করেছে এমন কোনো খবর এখনো পর্যন্ত আসেনি, তবে খোঁজখবর নিচ্ছি।

Related Articles

Back to top button
Close