fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কোলাঘাট ব্লক কৃষি দফতরের উদ্যোগে বৃন্দাবনচক অঞ্চলে কৃষকদের ধান বীজ দেওয়া হল

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাট: বিধ্বংসী আমফানের ঝড়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার প্রতিটি ব্লক সহ অঞ্চল ক্ষতিগ্রস্ত, ঝড়ের সঙ্গে প্রবল বৃষ্টিতে খরিপ মরসুমের জন্য চাষ করার জন্য চাষিরা যে বীজতলা ফেলেছিল তা প্রায় নষ্ট, পুনরায় যাতে চাষিরা চাষ করতে পারে তার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করল কোলাঘাট ব্লক কৃষি দপ্তর।

 

 

ব্লকের মধ্যে বৃন্দাবনচক অঞ্চল সর্ববৃহৎ, এই অঞ্চলের মধ্য দিয়েই কৃষকদের ধান বীজ দেওয়া শুরু করলো ব্লক কৃষি দপ্তর।এই অঞ্চলের ভৌগলিক অবস্থানই হচ্ছে নদীও খালের মধ্যে সীমাবদ্ধ। প্রায় আশি শতাংশ মানুষ কৃষির উপর নির্ভর করে জীবন জীবিকা করে। আফফান ঝড়ের আগে কৃষকরা খরিপ মরসুমের জন্য বীজতলা ফেলেছিল। ঝড়ের সঙ্গে প্রবল বৃষ্টিতে সমস্ত কৃষকের বীজতলা প্রায় নষ্ট। চাষিরা যাতে কম সময়ের মধ্যে ঘরে ধান তুলতে পারে, সেজন্য উন্নত জাতের ধান বীজ এই অঞ্চলের চাষীদের দেওয়া হল । প্রথম পর্যায় 300 জন চাষিকে এই উন্নত ধানের বীজ দেওয় হয়। জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা মিশনের সহযোগিতায় এই বীজ পাওয়ার জন্য ওই এলাকার চাষিদের মধ্যে উৎসাহও লক্ষ্য করা যায়। এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে চাষীদের হাতে বীজ ধান তুলে দেন কোলাঘাট ব্লক কৃষি আধিকারিক নবকুমার বর্মন। অনুষ্ঠানে পঞ্চায়েত প্রধান হিমাংশু শেখর নায়েক সহ নির্বাচিত প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

ব্লক কৃষি আধিকারিক শ্রী বর্মন জানান যে সমস্ত কৃষককে দেওয়া হলো উন্নত মানের বীজ ধান এই ধান চাষ করে কৃষকরা উপকৃত হবে। এই অঞ্চল নয ব্লকের প্রত্যেকটি অঞ্চলেই এই বীজ ধান দেওয়া হবে।
বৃন্দাবনচক গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান হিমাংশু শেখর নায়েক বলেন ইতিমধ্যে সরকারের দেওয়া এই বীজ ধান চাষিরা পেয়ে আনন্দিত। তারা এবারে ওই উন্নত জাতের চাষ করবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সময় হাতে কম এই চাষ ছাড়া আর কোন উপায় নেই। তবে সম্পূর্ণটাই নির্ভর করছে প্রকৃতির উপর।

Related Articles

Back to top button
Close