fbpx
কলকাতাহেডলাইন

ধর্ম নয়, আইনের চোখে সবাই সমান: ফিরহাদ

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: ধর্ম নয় আইন বড়। তোপ দাগলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। শনিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘প্রশাসন প্রশাসন এর মত চলবে কে হিন্দু-কে মুসলমান কে শিখ প্রশাসন সেটা দেখে না।’
সম্প্রতি হাওড়ায় বিজেপির নবান্ন অভিযানের দিন এক শিখ দেহ রক্ষীকে পুলিশ গ্রেফতার করে। বিভিন্ন মাধ্যমে দেখা যায় পুলিশ ঐ শিখ দেহরক্ষীকে টানতে টানতে নিয়ে যাচ্ছে। তারপর থেকেই দেশজুড়ে বিতর্ক দানা বাঁধে। ইতিমধ্যেই শিখ সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে বিবৃতি জারি করা হয়েছে।
পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ও প্রাক্তন ভারতীয় দলের ক্রিকেটার হরভজন সিং এর তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। সেই প্রসঙ্গেই এদিন ফিরহাদ হাকিম স্পষ্ট করে দেন, আইনের উর্ধ্বে কেউ নয়। আইন সবার জন্য সমান।
এদিন ফিরহাদ বলেন, ‘প্রশাসন দেখে আইন ভঙ্গকারী কে, তার কারণ প্রশাসন আইন রক্ষাকারী। সে জন্য অনেকে গ্রেপ্তার হয়েছে। আমি যখন আন্দোলন করেছি তখন আমিও বহুবার মার খেয়েছি। কখনো মনের মধ্যে এটা আসেনি যে আমার নামের জন্য আমি অ্যারেস্ট হয়েছি। আন্দোলন করেছি অ্যারেস্ট হয়েছি। সুতরাং আইন ও প্রশাসন তার জন্য দেখেনা কে হিন্দু-কে মুসলমান খ্রিস্টান। এটা কোন ভদ্র সমাজে গ্রহণ যোগ্য নয়। আইন ভাঙলাম কি না সেটার উপর নির্ভর করে। এটা নিয়ে যারা রাজনীতি করে তারা ঘৃণ্য রাজনীতি করছে। এই রাজনীতিতে দিল্লিতে উত্তর প্রদেশে চলে। এই রাজনীতি বাংলার পুলিশ বা কেউ করে না। আমরা ছোটবেলা থেকে বড় হয়েছি শুনতে শুনতে যে হিন্দু নয় মুসলমান জিজ্ঞাসে কোনজন। তাই যে অন্যায় করেছে আইন আইনের মতো তাকে শাস্তি দেবে। যার লাইসেন্স এখানকার নয় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করবে। বাংলায় এ রাজনীতি চলে না।’
অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গে নারী নির্যাতন দেশের অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় অনেক কম ও কলকাতা দেশের মধ্যে মহিলাদের জন্য সবচেয়ে নিরাপদ শহর বলে রাজ্যের পুর ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম দাবি করেছেন। দেশে নারী নির্যাতন রুখতে দেশের সব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পাঠানো নির্দেশিকার প্রেক্ষিতে ফিরহাদ হাকিম আজ বলেন, নারী নির্যাতনের সংস্কৃতি এ রাজ্যে নেই। এই ধরণের ঘটনা এ রাজ্যে প্রায় ঘটেনা বললেই চলে। এখানে কোথাও মহিলাদের উপর অত্যাচারের খবর আসলে পুলিশ প্রশাসন অনতিবিলম্বে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে। বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশে এই নির্দেশের প্রয়োজন বলে ফিরহাদ হাকিম মন্তব্য করেন।
 অন্য এক প্রসঙ্গে এদিন ফিরহাদ বলেন, ট্রেড লাইসেন্স থেকে প্রাপ্য প্রচুর পরিমান বকেয়া অর্থ দ্রুত আদায় করার জন্য কলকাতা পুরসভা উদ্যোগ নিচ্ছে বলে প্রশাসকবোর্ডের চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন। তিনি আজ সাংবাদিকদের বলেন, পুরকমিশনার বিনোদ কুমার ট্রেড লাইসেন্স বিভাগের আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠক করেছেন। এর জন্য বিশেষ দল গঠন করা হয়েছে।
শহরে কতজন বর্তমানে ব্যবসা করছেন, তাদের মধ্যে কার কত পরিমান অর্থ বকেয়া পরে আছে, কেন এতদিন তারা লাইসেন্স ফি দিতে পারেননি, কারা ইতিমধ্যে ব্যবসা বন্ধ করে দিয়েছেন, কিন্তু পুরসভার রেকর্ডে তাদের নাম আছে সেই সব বিষয় এই দলের সদস্যরা খতিয়ে দেখবেন ও বকেয়া অর্থ দ্রুত আদায় করার উদ্যোগ নেবেন। ফিরহাদ হাকিম বলেন, লকডাউনের জন্য লাইসেন্স ফি দেওয়ার সময়সীমা বৃদ্ধি করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close