fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লকডাউনের মধ্যেই বাড়িতে চুরির ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক, নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন

মিলন পণ্ডা, পাঁশকুড়া (পূর্ব মেদিনীপুর): করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে সারা রাজ্যের সঙ্গে রাজ্যেও লকডাউন চলছে। বৃহস্পতিবার ছিল জামাইষষ্ঠী। জেলার করোনা সংক্রমন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। খুব প্রয়োজন ছাড়া মানুষ বাড়ির বাইরে বের হচ্ছে না। জামাইষষ্ঠীর কারনেই স্বপরিবারে শ্বশুরবাড়িতে চলে গিয়েছিল। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে লক্ষাধিক টাকা জিনিসপত্র নিয়ে চম্পট দিল একদল দুষ্কৃতী। এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পরই গোটা এলাকায় বেশ আতঙ্কে পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে।

চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়া থানার বাহারপোতা গ্রামে। ঘটনার খবর পেয়ে শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পাঁশকুড়া থানার পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে যে, বৃহস্পতিবার বিকালে জামাইষষ্ঠী উপলক্ষে পাশের ঘোলবাগুরি গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে চলে যান মহাদেব গুচ্ছাইত সহ তার পরিবারের সদস্যরা। রাতে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে দুষ্কৃতীরা বাড়ির সামনের গেটে তালা ভেঙ্গে সোনার গহনা, টিভি সহ কয়েক লক্ষাধিক টাকার জিনিসপত্র নিয়ে চম্পট দেয়। বাড়ির মালিক মহাদেব গুচ্ছাইতের বাবা মনোরঞ্জনবাবু বাড়ি থেকে কিছু দূরে আর একটি বাড়িতে থাকেন। এদিন সকাল এসে দেখে বাড়ির মুল গেটে তালা ভাঙ্গা অবস্থায় রয়েছে। বাড়িতে ঢুকে দেখে আলমারি ভাঙ্গা অবস্থায় রয়েছে। ঘটনার খবর পাওয়ার পর শ্বশুরবাড়ি থেকে মহাদেব স্বপরিবারে বাড়িতে চলে আসেন।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পাঁশকুড়া থানার পুলিশ। যদিও এই চুরির ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

বাড়ির মালিক মহাদেব গুছাইত বলেন, জামাইষষ্ঠী উপলক্ষে পাশের ঘোলবাগুরি গ্রামের শ্বশুর বাড়িতে গিয়েছিলাম। বাড়ির সামনের গেটের তালা ভেঙ্গে ঢুকে পরে চোরের দল। এরপর আলমারি ভেঙ্গে সোনার গয়না একটি এলইডি টিভি সহ প্রায় দু’লক্ষ টাকা জিনিসপত্র নিয়ে চম্পট দেয়। এই ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। পাঁশকুড়া থানার ওসি অজয় কুমার মিশ্র বলেন, একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close