fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদার চাঁচলে বেহাল নিকাশি, রাস্তায় ধানের চারা পুঁতে প্রতিবাদ

মিল্টন পাল,মালদা: বৃষ্টির জলে জলমগ্ন গ্রামের রাস্তা। নেই নিকাশি ব্যবস্থা। বার বার স্থানীয় প্রশাসন থেকে জেলা প্রশাসনকে জানিয়েও কোন কাজ হয়নি। আষাঢ়ে বর্ষা মরশুমের শুরুতে বেহাল রাস্তা। আর যার ফলে রাস্তার মধ্যে ধানের চারা পুঁতে রাস্তা সারাইয়ের প্রতিবাদ জানালো গ্রামের পুরুষ ও মহিলা। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে মালদার মালদার চাঁচোল থানার নগাছিয়া গ্রামে। যদিও বিডিওর আস্বাস খুব দ্রুত রাস্তা সারাইয়ের কাজ করা হবে।

স্বাধীনতার ৭৩ বছর কেটে গেলেও আজও তৈরি হয়নি পাকা রাস্তা।বহুবার পঞ্চায়েত প্রধান, বিডিও, এসডিও বিধায়কে বলেও হয়নি কোনো কাজ। সম্প্রতি দিদিকে বল কর্মসূচিতে ফোন করা হলেও মিলেছে শুধু আশ্বাস, কিন্তু কাঁচা রাস্তা পাকা রাস্তায় পরিণত হয়নি। একদিনের একটানা হালকা মাঝারি বৃষ্টি হলেও বেহাল দশা চাঁচলের নোগাছিয়া গ্রামের। এই গ্রামে প্রায় দুই কিলোমিটার রাস্তার বেহাল দশা। রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে কাঁচা, দুদিনের বৃষ্টিতে রাস্তায় এক হাঁটু জল। পুরো রাস্তাটি এবড়ো খেবড়ো যা এলাকাবাসীর যাতায়াতের উপযোগী নয়। এলাকাবাসী বাম আমল থেকে কাঁচা রাস্তা পাকা করার দাবি জানিয়ে আসলেও কোনো সুরাহা হয় না। কাঁচা রাস্তা পাকা রাস্তায় পরিণত হয় না। বৃহস্পতি ও শুক্রবার হালকা মাঝারি বৃষ্টিপাতের ফলে রাস্তার বেহাল দশা। ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করে এলাকার বহু মানুষ। রাস্তা দিয়ে যেতে গেলে রাস্তায় হোঁচট খেয়ে কিংবা পিছলে পড়তে হয়। শুধু বেহাল রাস্তা নই। এলাকায় নেই কোন নিকাশি ব্যবস্থা, ও পর্যাপ্ত আলো।তাই কাঁচা রাস্তা পাকা করার দাবি নিয়ে রাস্তায় ধান গাছের চারা পুতে বিক্ষোভ দেখাল গ্রামবাসীরা।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কে বন্ধ করা হল চন্দ্রকোনা পৌরসভা

গ্রামের বাসিন্দা আসরাফুল হক জানান,চাঁচল গ্রাম পঞ্চায়েতের নগাচিয়া গ্রামের এই রাস্তা দিয়ে আশেপাশের রানিকামা, শিহিপুর, রতনপুর, রামপুর গ্রামের বাসিন্দারা নিত্য প্রয়োজনে যাতায়াত করে থাকেন। শুধু এলাকাবাসী নন রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করতে সমস্যায় পড়েন শ্রীপুর জুনিয়র হাই স্কুল, প্রাইমারি স্কুলের শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষক শিক্ষিকারা।
চাঁচল ১ নং ব্লকের বিডিও সমিরন ভট্টাচার্যকে জানান,পঞ্চায়েতকে বলবো দ্রুত পোপোজাল দিয়ে রাস্তা সারাই করতে। দ্রুত রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু করা হবে।

মালদা জেলা পরিষদের সভাধীপতি গৌড় চন্দ্র মন্ডল বলেন,করোনা সংক্রমনের জেরে অনেক কাজ বন্ধ হয়ে রয়েছে। সম্প্রতি কাজ করার নির্দেশ এসেছে। আমরা ওই এলাকার জেলা পরিষদ সদস্যর সাথে কথা বলে দ্রুত রাস্তা সংস্কার করার কাজ শুরু করা হবে।

জেলা বিজেপির সহ সভাপতি অজয় গাঙ্গুলী বলেন,তৃণমূল উন্নয়নেরকাজ কাজ করে না। এরা উন্নয়নের নামে লুঠ পাট করে। যার ফলে বছরের পর বছর নেই নিকাশী বেহাল রাস্তা। তাই এদিন মানুষ বিক্ষোভ করেছে। এটাই স্বাভাবিক। দ্রুত রাস্তা সারাই করা না হলে আগামীতে বিজেপি এলাকার মানুষকে নিয়ে আন্দোলনে নামবে।

Related Articles

Back to top button
Close