fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

আলিপুরদুয়ারের মামলায় ভবানীভবনে হাজিরা ভারতী ঘোষের, দাবি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের 

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: এক সময়ে তিনি নিজেই ছিলেন জঙ্গলমহলের দাপুটে পুলিশকর্তা। কিন্তু তারপরে পরিস্থিতির বদলে তার পিছনেই হন্যে হয়ে ঘুরেছিল সারা রাজ্যের পুলিশ। যদিও রাজীব কুমারের মত তারও হদিশ পাননি গোয়েন্দারা। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রথম বার আলিপুরদুয়ারের একটি মামলায় শনিবার সকালে ভবানীভবনে হাজিরা দিতে এলেন প্রাক্তন পুলিশকর্তা ভারতী ঘোষ। তবে বেরিয়ে এসে গোটা বিষয়টি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র বলেই দাবি করেছেন তিনি।
প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের  আলিপুরদুয়ারের একটি মামলায় শুক্রবার রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দা দফতরে ভবানী ভবনে হাজির হওয়ার জন্য জরুরি তলব পাঠানো হয় বিজেপির রাজ্য  সহ সভাপতি তথা প্রাক্তন পুলিশকর্তা ভারতী ঘোষকে। প্রথম দিকে যদিও সেই মামলায় তিনি হাজিরা দেননি। তবে এদিন সকালে তিনি হাজির হন।
তবে বেরিয়ে এসেই তিনি অভিযোগ করেন, একসময়ে তাকে ধরতে না পেরে এখন রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবেই স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী ও তার দলের নির্দেশেই তাকে হয়রানি করা হচ্ছে। আর সেই কাজে লাগানো হচ্ছে  সিআইডির গোয়েন্দাদের। বিধানসভা নির্বাচনের আগে তাকে দলীয় কাজকর্মে থেকে বিরত রাখার জন্যই এই চক্রান্ত করা হয়েছে। লোকসভা নির্বাচনের আগেও একই রকম চক্রান্ত করা হয়েছিল।
তবে এই  করোনা পরিস্থিতির মধ্যে জরুরি তলব দিয়ে ডেকে পাঠানোয় ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন ভারতী দেবী। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, যা জিজ্ঞাসা করা হয়েছে তা ফোনের মাধ্যমেও জিজ্ঞাসা করা যেত। যে অফিসার তাকে আলিপুরদুয়ারের মামলার জন্য জেরা করছিলেন,  সেই অসীম মন্ডল বর্তমানে করোনা আক্রান্ত। তা সত্বেও তাকে পুনরায় ডেকে জেরার নামে  হয়রানি করা হয়েছে। আর বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসবে, তত এই ধরনের হয়রানি বাড়বে। কারণ পুরোটাই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

Related Articles

Back to top button
Close