fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

জাতীয় পরিষদের প্রথম ভাষণেই বেতন বৃদ্ধির ঘোষণা পাকিস্তানের নয়া প্রধানমন্ত্রীর 

যুগশঙ্খ , ওয়েব ডেস্ক :  জাতীয় পরিষদে দেওয়া প্রথম ভাষণেই সরকারি কর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধির ঘোষণা করলেন পাকিস্তানের নয়া প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। পাশাপাশি বেসামরিক ও সামরিক বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কর্মচারীদের পেনশন বৃদ্ধিরও ঘোষণা করেছেন তিনি।

শাহবাজ সোমবার জাতীয় পরিষদে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। গতকালই দেশটির ২৩তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর জাতীয় পরিষদে দেওয়া প্রথম ভাষণে শাহবাজ শরিফ বলেন, ‘আজ ঐতিহাসিক এক দিন।’ তিনি বলেন, অর্থনৈতিক সূচকেই মানুষের স্বাচ্ছন্দ্যের বিষয়টি ফুটে উঠবে। ডলারের বিপরীতে রুপি শক্তিশালী হতে শুরু করেছে। আজ (সোমবার) দিনের শুরুতে ১৯০ রুপিতে এক ডলার কেনাবেচা হয়, দিন শেষে এটা ছিল ১৮২ রুপি।

শাহবাজ সরকারি কর্মচারীদের বেতন কমপক্ষে ২৫ হাজার রুপি করার ঘোষণা করেছেন, যা ১ এপ্রিল থেকে কার্যকর হবে। অবসরপ্রাপ্ত সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেনশন ১০ শতাংশ বৃদ্ধির ঘোষণাও দিয়েছেন নতুন প্রধানমন্ত্রী। এটাও কার্যকর হবে ১ এপ্রিল থেকে।

ইমরান খান বিদেশি ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলে যে ‘হুমকির চিঠির’ কথা বলেছেন, তা তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ।

পরে আগামী শনিবার বিকেল চারটা পর্যন্ত জাতীয় পরিষদের অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়।

পাকিস্তানের দ্বিকক্ষবিশিষ্ট পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ তথা জাতীয় পরিষদের ৩৪২ ভোটের মধ্যে ১৭৪ ভোট পেয়ে আজ সোমবার দেশটির ২৩তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হন শাহবাজ। ১৯৫০ সালে পাঞ্জাবের লাহোরে জন্মগ্রহণ করেন শাহবাজ শরিফ। একসময় দেশের প্রভাবশালী ব্যাবসায়িক ব্যক্তিত্বদের একজন হয়ে ওঠেন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব কম্পানির অংশীদার তিনি। ১৯৮৫ সালে লাহোর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি নির্বাচিত হন। পাঞ্জাবের তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ ২০১৮ সালের জাতীয় পরিষদ নির্বাচনে কয়েকটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তবে জয় পান কেবল একটি আসনে। পাঞ্জাব প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচনে সেবার জেতেন দুটি আসনে। এরপর তিনি প্রধানমন্ত্রিত্বের লড়াইয়েও নামেন। সেবার ইমরান খানের কাছে হেরে যান। আর এখন অনাস্থা ভোটে প্রধানমন্ত্রিত্ব থেকে ইমরান খানের বিদায়ের পর তিনিই হলেন পাকিস্তানের সরকারপ্রধান।

Related Articles

Back to top button
Close