fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

জাতীয় পতাকা উড়িয়ে ১৮ই আগস্ট স্বাধীনতা দিবস পালন বালুরঘাটে

পিন্টু কুন্ডু , বালুরঘাট: জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে ১৮ই আগস্ট মহাসমারোহে স্বাধীনতা দিবস পালন হল বালুরঘাটে। মঙ্গলবার সকালে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট হাই স্কুল ময়দানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে পালন করা হয় বালুরঘাটের স্বাধীনতা দিবস।

জেলা বিজেপি দলের তরফে আজকের এই দিনটি পালনের মধ্য দিয়ে পুরনো স্মৃতি উস্কে উঠেছে। ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট স্বাধীনতার আনন্দ নিয়ে যখন মাতোয়ারা গোটা দেশ। ঠিক তখনই যেন কালো ছায়া নেমে এসেছিল বালুরঘাটবাসীর কাছে। কেননা ১৪ই আগস্ট রাতে পাকিস্তানি খানসেনা বালুরঘাটের দখল নিয়েছিল। ১৫ই আগস্ট যখন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে জাতীয় পতাকা উত্তোলিত হচ্ছে তখন বালুরঘাটে মহকুমার শাসক ব্রিটিশদের ইউনিয়ন জ্যাক তুলেছিলেন। গোটা বালুরঘাট চলে গিয়েছিল পাকিস্তানের দখলে।

[আরও পড়ুন- উপসর্গবিহীন করোনা পজিটিভরা অসতর্ক ভাবে করোনার সংক্রমন ছড়াচ্ছে, দাবি প্রশাসনের]

তারপর স্বাধীনতা সংগ্রামী শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, পুলিনবিহারী দাসগুপ্ত সহ অন্যান্য স্বাধীনতা সংগ্রামীরা ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে আন্দোলনের সোচ্চার হন। সেইসময় র‍্যাডক্লিপ বালুরঘাট রায়গঞ্জ ও অসমের কিছু এলাকাকে ‘ন্যাশনাল এরিয়া’ বলে ঘোষণা করেছিলেন। অবশেষে ১৭ই আগস্ট আন্দোলনের চাপে বর্তমান বাংলাদেশের পত্নীতলা, ধামাইহাট সহ বেশ কিছু এলাকা বাদ দিয়ে বালুরঘাট সহ মোট পাঁচটি থানা ভারতের অন্তর্ভুক্ত হয়। ১৮ই আগস্ট বালুরঘাটকে স্বাধীন বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

স্বাধীনতা লাভের পর বালুরঘাটে প্রথম জাতীয় পতাকা তুলেছিলেন স্বাধীনতা সংগ্রামী সরোজ রঞ্জন চট্টোপাধ্যায়। সেই থেকে এই দিনটি স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পালন করে আসছে বালুরঘাটবাসী। এদিনের বিজেপির উদ্যোগে তা আরও আড়ম্বরপূর্ণ করা হয়েছে। বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার জানিয়েছেন, ঘটা করে পালন করা হয়েছে বালুরঘাটের স্বাধীনতা দিবস। এদিন বীর শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

 

Related Articles

Back to top button
Close