fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

অতিমারির আবহেও মানবিক, একমাসে পাঁচটি দেশে ২৩ লক্ষ PPE রফতানি করেছে ভারত

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার দাপটে নাজেহাল গোটা বিশ্ববাসী। এই ভাইরাসের হাত থেকে রেহাই পায়নি ভারতও। সংক্রমণ থেকে বাঁচতে বিশেষজ্ঞরা বারবার বলছেন মাস্ক পড়তে। আর একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হল ‘পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট বা পিপিই কিট। বর্তমানে আণুবীক্ষণিক জীবের মরণ কামড় থেকে এই পোশাকই রক্ষা করে স্বাস্থ্যকর্মীদের। উল্লেখ্য, ভারতে যখন করোনা মহামারী প্রথম থাবা বসালো, তখন এদেশের মাটিতে পিপিই কিট তৈরিই হত না। কিন্তু গত চারমাসে ছবিটা অনেকটা পালটে গিয়েছে। ভারত এখন বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ পিপিই প্রস্তুতকারী দেশ। এবং দেশের অভ্যন্তরের চাহিদা পূরণের পাশাপাশি বহু এই কিট বিদেশে রফতানি করার মতো জায়গাতেও পৌঁছে গিয়েছে।

পরিসংখ্যান বলছে, শুধু জুলাই মাসে বিশ্বের পাঁচটি দেশে প্রায় ২৩ লক্ষ পিপিই কিট রফতানি করেছে ভারত। যে পাঁচ দেশে রফতানি করা হয়েছে সেগুলি হল, আমেরিকা, ব্রিটেন, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী, সেনেগাল এবং স্লোভানিয়া। শুধু পিপিই নয়, এর পাশাপাশি N-95 মাস্ক, ভেন্টিলেটর এবং অন্যান্য চিকিৎসা সামগ্রীও রপ্তানি করা শুরু হয়েছে। আসলে করোনা মহামারীর প্রকোপ যত বাড়ছে, বিশ্বের বাজারে PPE-সহ অন্যান্য চিকিৎসা সামগ্রীর চাহিদাও ততই বাড়ছে। আর সেই বাজার ধরতেই ভারতীয় সংস্থাগুলি আরও বেশি বেশি চিকিৎসা সামগ্রী উৎপাদন করছে। তাছাড়া প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি  তো বলেই দিয়েছেন, ভারত এমন একটা দেশ যেটা কিনা এই মহামারীর আবহেও অন্যদের পাশে দাঁড়াবে।

কেন্দ্রের বক্তব্য, এসবই প্রধানমন্ত্রীর ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ এবং ‘আত্মনির্ভর ভারত’ মিশনের কামাল। স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় এই মহামারীকে সুযোগ হিসেবে কাজে লাগিয়েছে সরকার। স্বাস্থ্য মন্ত্রক, বস্ত্র মন্ত্রক, DRDO এবং DPIIT চিকিৎসা সামগ্রী উৎপাদন ক্ষমতা ব্যপক হারে বাড়িয়ে দিয়েছে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close